৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণের পর জোরপূর্বক বিয়ে ও ধর্ষণের অভিযোগে কাজীসহ ৩ সন্তানের জনক আটক

রেজা মাহমুদ,নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমারে ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণের পর জোরপূর্বক বিয়ে ও ধর্ষণের অভিযোগে অপহরণকারী এবং নিকাহ রেজিস্টারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার ওই অপহরণকারী তিন সন্তানের জনক মানিক ইসলাম( ৩২) এবং নিকাহ রেজিস্টার কাজী মো:হাবিবুর রহমান(৬০) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়,উপজেলার খাটুরিয়া এলাকার মৃত দবির উদ্দীনের ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ওই ছেলে শাহীপাড়ার বাবলু ইসলামের মেয়ে ৮ম শ্রণির ওই ছাত্রীকে কয়েকমাস ধরে রোজ স্কুল যাওয়া আসার পথে উত্যক্ত করত। গত ২৮ মে দুপুরে একা খালার বাড়িতে যাওয়ার পথে মেলাপাঙ্গা এলাকা থেকে তাকে অপহরণ করে খাটুরিয়া সেন্টারপাড়া এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে ওই কাজির বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে কাজি রেজিস্টার খাতায় জোর করে তার স্বাক্ষর নেয়। এরপর বিয়ের কথা গোপন রাখার হুমকি দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে একাধিকবার তাকে ধর্ষণ করে।

এরই ধারাবাহিকতায় মেয়েটি আজ তার নানা বাড়ি যাওয়ার পথে জোরপূর্বক মটরসাইকেলে তোলার চেষ্টা করলে মেয়েটির চিৎকারে লোকজন ছুটে এসে তাকে আটক করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে মেয়েটির বাবা অপহরণকারী এবং কাজির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এ ব্যাপারে ওই থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃতদের আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।