স্ত্রীর মর্যাদা পেতে স্বামীর বাড়িতে অনশনে তরুণী

কুষ্টিয়া দৌলতপুর প্রতিনিধি: স্ত্রীর মর্যাদা পেতে, কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়ানের লালনগর গ্রামের গ্রাম ডাক্তার আতিয়ারের ছেলে, স্বামী রাসেলের বাড়িতে হঠাৎ আসে ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপনগর গ্রামের এক তরুণী।

এই তরুণী বাংলায় প্রতিদিন কে জানান, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেইসবুকে তাদের পরিচয়ের ২ মাস পর, ২৪ মার্চ ২০২০ ইং তারিখে কোর্ট ম্যারেজ করে আমাকে বিয়ে করে রাসেল।আমাদের বিয়ের পরে আমি রাসেলকে ৪০ হাজার টাকা দিয়েছি। আমাকে তার নানির বাড়ি, খালার বাড়ি, নিয়ে গেছে ২/৩ দিন করে থেকেও এসেছি ১ মাস ধরে তার খোঁজ খবর না পেয়ে সোমবার দুপুর আমি রাসেলের বাড়িতে চলে এসেছি।

তবে ওই তরুণীকে অভিযুক্ত রাসেলের পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন ভাবে গালাগালিসহ নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখায় বলে অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে কালিদাসপুর পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এএসআই রবীন্দ্রনাথ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ বিষয়ে রাসেলের মা জানান বিয়ের আগে আমরা জানি না তবে বিয়ের পরে আমরা শুনেছি রাসেল বিয়ে করেছে, এ ব্যাপারে রাসেল জানান ২৪ শে মার্চ ২০২০ তারিখে আমাকে কুষ্টিয়াতে ডেকেছিল ওখান থেকে আমরা কুষ্টিয়া কোর্ট ম্যারেজ করে বিয়ে করেছিলাম। আবার ৭ জুন ২০২০ ইং তারিখে আমি ডিভোর্স দিয়েছি।