সালথায় গ্রাম্য দুদলের  সংঘর্ষে আহত- ১০, পুলিশের গাড়ী ভাংচুর

বিধান মন্ডল (ফরিদপুর) প্রতিনিধি: ফরিদপুরের সালথায় গ্রাম্য দ-ুদলের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শনিবার সকালে উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের শৈলডুবী ও রামকান্তপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় পুলিশের একটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে সংঘর্ষকারীরা।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন, গ্রাম্য দলপক্ষ নিয়ে রামকান্তপুর ইউনিয়নের সালথা, রামকান্তুপুর, শৈলডবী, নিধিপট্টি ও খলিশাডুবি গ্রামে বেশ কিছুদিন ধরে দলপক্ষ নিয়ে  বিরোধ চলছে। এরই জেরধরে শনিবার সকাল ৭টার দিকে শৈলডুবি গ্রামের ইউপি সদস্য আবু সায়েম হোসেনের সমর্থকদের সাথে রামকান্তপুর গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য কামাল বিশ্বাসের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সংঘর্ষে খলিশাডুবি গ্রামের সৈয়দ মাতুব্বার (মেম্বার) এর সমর্থকরা সায়েম মেম্বারের সমর্থকদের সাথে যোগ দেয়।

অন্যদিকে নিধিপট্টি গ্রামের রাশেদ মাতুব্বারের সমর্থকরা কামাল বিশ্বাসের সমর্থকদের সাথে যোগ দেয়। এরপর দেশিয় অস্ত্র ঢাল-কাতরা, সড়কি-ভেলা, রামদা ও ইটপাটকেল নিয়ে ৩ ঘন্টাব্যাপী চলে এ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় উভয় দলের অন্তত ১০ জন আহত হয়। আহতদের দুইজনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকি আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনারই জের ধরে সকাল থেকে  সালথা সদর বাজারের আশপাশ দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে যেকোন সময় বড় ধরনের সংঘর্ষ হতে পারে।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ বলেন, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় সংঘর্ষ থামাতে কয়েজজন পুলিশও আহত হয়। সরকারি কাজে বাঁধা প্রদানসহ পুলিশের গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।