সাবেক মন্ত্রী কে এম ওবায়দুর রহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী।


শরিফুল হাসান,ফরিদপুর প্রতিনিধি: বিএনপির সাবেক মহাসচিব, সাবেক মন্ত্রী মরহুম কে এম ওবায়দুর রহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল ২১ মার্চ । ২০০৭ সালের ২১ মার্চ তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ১৯৩৯ সালের ৫ মে ফরিদপুরের নগরকান্দা থানার লস্করদিয়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন কে এম ওবায়দুর রহমান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থায় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং দুইবার ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬২-৬৩ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)-এর জিএস নির্বাচিত হন তিনি। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ’৬২-এর শিক্ষা আন্দোলন এবং ১৯৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচনে তিনি নিজ নির্বাচনী এলাকা নগরকান্দা (নগরকান্দা- সালথা) থেকে এমপি নির্বাচিত হন এবং ১৯৭৩ সালে তৎকালীন সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৭৫-এর পট পরিবর্তনের পর ১৯৭৮ সালে জাতীয়তাবাদী ফ্রন্টে যোগদান এবং শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নের্তৃত্বে বিএনপি গঠনের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। পরে সরকারের মৎস্য ও পশু পালন মন্ত্রণালয়সহ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৬ সালে বিএনপির মহাসচিব নিযুক্ত হন।

মরহুম কে এম ওবায়দুর রহমানের মৃত্যু বার্ষি কী পালন উপলক্ষে শনিবার (২১ মার্চ) সকাল ৮টায় মরহুমের মাজার জিয়ারত করবেন বিএনপি ও বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কুরআন তেলাওয়াত এবং নগরকান্দার লস্করদিয়ায় ওবায়েদ চত্তরে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য সারা দেশে করোনা ভাইরাস আতঙ্কের কারনে অনুষ্ঠান সল্প পরিসরে আয়োজন করা হবে।