সাপাহারে ৩শ ৩৪ টি মসজিদে ৫ হাজার টাকা করে ঈদ উপহার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান।

আবু বক্কার,সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে ৩শ ৩৪ টি মসজিদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ৫ হাজার টাকা করে ঈদ উপহার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। জানাগেছে,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে দেশের সকল মসজিদে ১২২ কোটি ২ লাখ ১৫ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেছেন।

বিশ্বব্যাপী বিরাজমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব অনুসরণসহ নানাবিধ কারণে দেশের মসজিদগুলোতে মুসল্লিরা স্বাভাবিকভাবে ইবাদত করতে পারছেন না। এতে দানসহ অন্যান্য সাহায্য কমে যাওয়ায় মসজিদের আয় হ্রাস পেয়েছে। ফলে মসজিদের দৈনন্দিন ব্যয় নির্বাহ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। বিরাজমান পরিস্থিতিতে মসজিদসমূহের আর্থিক অসচ্ছলতা দূরীকরণে অনুদানের অর্থ ইলেক্ট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট জেলায় ইতিমধ্যে প্রেরণ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক/উপ-পরিচালকদের সমন্বয়ে উক্ত অনুদানের অর্থ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা গুলোতে ইতি মধ্যে বিতরণ করা হচ্ছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। তার -ই আলোকে অদ্য ২৩ মে শনিবার সকাল ১১টায় সাপাহার পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সাপাহার উপজেলার ৩শ ৩৪ টি মসজিদে ৫ হাজার টাকা মোট ১৬ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।

মসজিদে অর্থ বিতরণের সময় প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত থেকে স্থানীয় সাংসদ, মাননীয় খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি এক টেলি কন্ফারেন্সের মাধ্যমে সকল ইমাম -মুয়াজ্জিনদের উদ্যোশে বলেন দেশ স্বাধীন হবার পর এই প্রথম শেখ হাসিনা সরকার একযোগে সারাদেশের সকল মসজিদে অনুদান দিয়ে নজির সৃষ্টি করলেন,যা বিগত দিনে অন্য কোন সরকার করতে পারিনি, তিনি আরো বলেন প্রধান মন্ত্রী পর্যাপ্ত ত্রাণ উপহার,শিশু বান্ধব খাদ্য সরবরাহ ৫০ লক্ষ পরিবারে ২ হাজার ৫ শ টাকা, দিয়ে দেশে ও জনগনের কল্যাণে নিরলস ভাবে দিন-রাত কাজ করেই যাচ্ছেন তিনি, সকল ধর্মের মানুষের প্রতি সমান ভাবে সবসময় সু -দৃষ্টি রাখেন তিনি। দেশে কোন প্রকার খাদ্য ঘাটতি নেই বলে জানান খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি.

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য এবং করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য দেশ ও জনগনের জন্য দোওয়া করার আহ্বান করেন মন্ত্রী। উপস্থিত সকলকেই মোবাইলের মাধ্যমে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছাও বিনিময় করেন তিনি।

উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যাণ চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহাজান হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোহরাব হোসেন, অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই। অন্যানাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস সরকার, পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাজেদুল আলম , ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ফিল্ড সুপার ভাইজার তোফাজ্জল হোমেন প্রমুখ।এছাড়াও সুধীজন,সাংবাদিক বৃন্দ সেখানে উপস্থিত ছিলেন।