রাস্তায় গাছ ফেলে দশমিনায় লকডাউন

রাস্তায় গাছ ফেলে গ্রামকে লকডাউন করেছে যুবসমাজ ।

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: নিজেদের গ্রামকে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে স্বউদ্যোগে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বাশঁবাড়িয়া ইউনিয়ানের দক্ষিন দাসপাড়া নতুন বাজার-গছানী বাজার রাস্তায় গাছ ফেলে গ্রামকে লকডাউন করেছে যুবসমাজ । বুধবার সকাল থেকে দুপুর প্রযন্ত এমন কাজটি বাস্তবায়ন করছেন ওই গ্রামের যুবকেরা। গ্রামের সব বয়সী মানুষ মেনে চলছেন নিয়ম।

যুবকেরা গ্রামের অস্বচ্ছল মানুষকে সাহায্য নিয়েও ভাবছেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, স্বতঃস্ফূর্তভাবে চলছে জনতার ‘লকডাউন।’ রাস্তায় অপ্রয়োজনীয় চলাচল বন্ধ করেছেন গ্রামবাসী। এ ব্যাপারে গ্রামবাসীকে সচেতন করছেন যুবসমাজ। গ্রামের বাইরে থেকে কেউ অপ্রয়োজনে আসলেই তাকে আবার বাসায় ফেরত পাঠানো হচ্ছে। করোনা বিষয়ে সতর্ক করার পাশাপাশি গ্রামবাসীকে জরুরি কাজ ছাড়া বাইরে না গিয়ে বাড়ি থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন যুবকেরা।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চালার জন্য যুবসমাজ সচেতন করার পাশাপাশি তদারকিও করছেন। ইউপি সদস্য মোঃ নিজাম উদ্দিন জানান, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে প্রচারণার মাধ্যমে আমরা সচেতন করছি মানুষকে। যাতে করে দিনে রাতে দুরদুরন্ত থেকে গাড়িযোগে এলাকায় অযথা না আসতে পারে সে জন্য এলাকার রাস্তায় গাছের টুকরা দিয়ে যাতায়েত বন্দ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গ্রামে দোকানে দোকানে এখন আড্ডা নেই। উঠতি বয়সীদের জটলা নেই। আরেক যুবক রাজিব হাওলাদার জানান, গ্রামের কর্মহীন-অসচ্ছল পরিবারগুলোর খোঁজ নেওয়া হচ্ছে এবং প্রয়োজনে তাদের আর্থিক সাহায্য করা বিষয় আমরা যুবসমাজ চিন্তা করতেছি।

যুবসমাজের প্রতিনিধিদের একজন ফারুক আলম হাওলাদার বলেন, বাইরে থেকে কেউ গ্রামে আসলে তার পরিচয় এবং তিনি প্রবাসী কি-না, কোথা থেকে এসেছে, সে বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। দশমিনা থানা ওসি এস এম জালাল উদ্দিন বলেন, রাস্তায় কোন গাছ ফালানো যাবেনা জরুরি প্রয়োজনে গাড়িতে যাতায়েত করে মানুষ। দুরদুরন্ত থেকে কোন লোক এলাকায় প্রবেশ করলে থানা পুলিশকে সংবাদ দিন।