মানবিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে গেলেন,ভালুকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

শরীফ হোসেন  ভালুকা প্রতিনিধি:  ময়মনসিংহের ভালুকায়,ঝড়ে নিজের থাকার ঘর হারিয়ে খোলা আকাশ কিংবা স্কুলের বারান্দায়,করোনার ঝুঁকিতে বসবাসরত হতদরিদ্র  শহিদ মিয়ার পরিবারের ৭সদস্যের,মানবেতর জীবন যাপনের অবসান ঘটাতে, মানবিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে গেলেন,ভালুকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ। ব্যক্তিগত উদ্যোগে,২বান্ডেল টিন কিনে দিয়ে,পরিবাররের ৭সদস্যের মানবেতর জীবন যাপনের অবসান ঘটালেন,মানবিক ওই জননেতা।

তিনি জানান,মেদুয়ারী ইউনিয়নের বান্ধিয়া  গ্রামের শহিদ মিয়া,নিজের বেঁচে থাকার অবলম্বন হিসেবে একটি চায়ের দোকান আর মাথা গোঁজার ঠাঁই মাত্র এক শতাংশ জমিতে কোনমতে দাড়ঁকরোনো একটি মাটির ঘর ।আর তাতেই সে পরিবার সদস্যদের নিয়ে অভাব অনটনের মধ্য দিয়ে দিন পার করছিল।

কয়দিন আগে তার ঘরটি কাল বৈশাখী ঝড়ে উড়িয়ে নিয়ে যায়।এতে সে আশ্রয়হীন হয়েপড়ে,দিনে খোলা আকাশের নিচে আর রাতে স্কুলের বারান্দায় মানবেতর জীবন যাপন করছে বলে খবর পাই,আর তাই আজ বৃহস্পতিবার সন্ধায় আমি তার বাড়ী গিয়ে অনাহারী ৫ টি সন্তানের খাবারের ব্যবস্থা করে তাদের সাথে ইফতার করি।

পরে ঘরটি মেরামতের জন্যে নিজের ব্যক্তিগত উদ্যোগে ২বান্ডেল টিন কিনে দিই। এতে ওই অসহায় পরিবারটির মুথে হাসি দেখতে পেয়ে আমি পরম তৃপ্তি পেয়েছি। ওই সময় আবুল কালাম আজাদ, হতদরিদ্র  পরিবারটিকে সরকারের গৃহ নির্মান কর্মসুচি”র একটি ঘর উপহার দেয়ারও আশ্বাস দেন। তরুণ ওই সমাজ সেবকের এই কৃতকর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে স্থানীয়রা তাকে মানবিক একজন সেবক হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন