মধুখালী পৌরসভা আছে “কিন্তুু নাগরীকরা কোন সুবিধা পাচ্ছে না


শরিফুল হাসান, ফরিদপুর: ফরিদপুর জেলার অর্ন্তগত মধুখালী পৌরসভা ১১ই অক্টোবর ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় । ৯ টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে পৌরসভা গঠিত হয় । পৌর ভবনটি মধুখালী থানার প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত । পৌরসভার সর্ব দক্ষিণে মেছরদিয়া মৌজা, উত্তরে ফরিদপুর চিনিকল এলাকা, পশ্চিমে চন্দনা নদী অবস্থিত ।

এর আয়তন ১২.০০ বর্গ কিলোমিটার । পৌরসভার মূল লক্ষ্য হচ্ছে নাগরিকদের নগর জীবন প্রধান করা,কিন্তু কিছুই পাচ্ছে না মধুখালী পৌরসভার খেটে খাওয়া, নিরীহ মানুষ কৃষক শ্রমিক ব্যবসায়ী জনতার ন্যায্য অধিকার পাচ্ছে না, মধুখালী পৌরসভা (খ) গ্রড থাকার পরেও মধুখালী পৌরবাসী পাচ্ছে না ঠিকমত পানি সাপ্লায়, বিদ্যুৎ থাকেনা ঠিকমত,নেই বাজারের ড্রেন, যথা স্থানে নেই বাজারের ময়লা ফেলার স্থান,নেই বাজারের পরিস্কার পরিচ্ছন্ন কর্মী নেই পৌর এলাকার মধ্যে লাইট ল্যাম্প , নেই ফায়ার সা‌র্ভি‌স ও পার্ক,পৌরসভার মধ্যে পুকুর গুলোর মশা উৎপাদনে ভান্ডার হয়ে আছে পুকুর গুলো নোংরা অবস্থায় আছে, পৌর মেয়র কাছে কৃষক ও সাধারণ মানুষ কোন সুবিধা পাচ্ছে না যাদের বয়স্ক ভাতা বিধবা ভাতা প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার যোগ্য তারা পাচ্ছে না, পৌরসভার মধ্যে যে ভ্যাট গুলো নেওয়া হয় আগে ছিল ৫০ টাকা, এখন ১২৫০ টাকা পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে, নাগরিক সনদ নিতে গেলে ১০০টাকা দিতে হয়, ট্রেড লাইসেন্স ৫৫০টাকা থেকে ১৫০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে, পৌরসভা এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে নাগরিকদের নগর জীবন দেওয়া কিন্তু তারা কিছুই পাচ্ছেনা।