ভারতে মুসলমানদের ওপর সহিংসতার প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায়, বিক্ষোভ মিছিল

আজ মঙ্গলবার বাদ আছর বড় বাজার মসজিদ চত্বর থেকে মিছিলটি বের করা হয়। মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে শাপলা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।
আজ মঙ্গলবার বাদ আছর বড় বাজার মসজিদ চত্বর থেকে মিছিলটি বের করা হয়, মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে শাপলা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

কুষ্টিয়া অফিস: ভারতের রাজধানী দিল্লিসহ বিভিন্ন স্থানে মুসলমানদের ওপর চালানো সহিংসতা, মসজিদে অগ্নিসংযোগ, মুসলমানদের বাড়ি-ঘরে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ ও বিশেষ মোনাজাত করেছে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা ওলামা পরিষদ। আজ মঙ্গলবার বাদ আছর বড় বাজার মসজিদ চত্বর থেকে মিছিলটি বের করা হয়।

মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে শাপলা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এতে আলেম ওলামাসহ সর্বস্তরের হাজার হাজার তৌহিদী জনতা অংশগ্রহণ করে। বৃহত্তর কুষ্টিয়া ওলামা পরিষদের সভাপতি মুফতি আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ওলামা পরিষদ নেতা মাওলানা আব্দুল খালেক, মাওলানা আব্দুল লতিফ, মাওলানা আব্দুল মতিন, মাওলানা মমিনুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হাকিমসহ সহ জেলার ওলামোয়ে কেরামবৃন্দ।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, ভারতের দিল্লিতে সম্পূর্ন অন্যায়ভাবে মুসলমানদের ওপর হামলা করা হচ্ছে, মসজিদে আগুন দেয়া হচ্ছে, বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে, মুসলমানদের হত্যা করা হচ্ছে। এই নির্যাতন বিশ্বের কোনো মুসলমান সহ্য করবে না। বক্তারা বলেন, ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদি গোষ্ঠি সে দেশের সাম্প্রদায়িক সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় মুসলমানদের উপর জুলুম নির্যাতনের যে নীল নকশা তৈরি করেছে।

বক্তারা আরো বলেন, ভারতের মুসলমানদের অবস্থা এখন খুবই নাজুক, বিভিন্ন এলাকার মসজিদের মিনারে উঠে মাইক ভেঙে ফেলা হচ্ছে, হনুমানের ছবি বসিয়ে দেয়া হচ্ছে। চোখে অ্যাসিড দিয়ে মুসলমানদের পুড়িয়ে মারা হচ্ছে। বক্তারা বলেন, মোদি মানবতা, ইসলাম ও বাংলাদেশের দুশমন। সারা দেশের মানুষ মোদিকে বাংলাদেশে আসতে দিতে চায় না। নির্যাতনকারী মোদিকে বাংলাদেশের মাটিতে পা রাখতে দেয়া হবে না। যেকোনো মূল্যে মোদিকে প্রতিহত করা হবে। জনগণ দলমত নির্বিশেষে মোদির আগমন প্রতিহত করবে।