ব্যক্তি উদ্যোগে গোপনে নিম্ন ও মধ্যবিত্তদের মাঝে চালের বস্তা ও খাবার বিতরণ

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, ষ্টাফ রিপোর্টার: স্থবির হয়ে পড়েছে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডসহ সবকিছু। সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও করোনা থাবা বসিয়েছে। এরই মধ্যে কর্মহীন হয়ে বিপাকে পড়েছেন নিম্নআয়ের লোকজন। বেকায়দায় আছেন নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তরাও। নিম্নবিত্তরা সহায়তা পেলেও সেক্ষেত্রে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে নিম্ন মধ্যবিত্ত-মধ্যবিত্তদের।

এরকম পরিস্থিতিতে মানবিক উদ্যোগ নিয়ে লজ্জায় হাত বাড়াতে পারেন না এমন নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন মোহাম্মদপুর থানার ৩১নং ওয়ার্ডের এক ব্যক্তি। নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের মানুষের সম্মানের কথা চিন্তা করে রাতের আঁধারে গোপনে ঘরে ঘরে চালের বস্তা ও খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওবায়দুল হক।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মানবতার সেবায় তিনি প্রতিদিন সারাক্ষণ টাউনহল গভঃ মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় নিজের অফিসে বসে দলীয় নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে ৩১নং ওয়ার্ডের জনগণ ও নেতা-কর্মীদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন এবং সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। এলাকাবাসী জানান, জনাব মোঃ ওবায়দুল হক একজন সাদা মনের মানুষ। উনার মতন নেতা রাজনৈতিক ময়দানে খুব কমই আছে, বিশাল হৃদয়ের সরল স্বভাবের কর্মীবান্ধব নেতা।

রাতের আঁধারে গোপনে ঘরে ঘরে চালের বস্তা ও খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন এ প্রসঙ্গে রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওবায়দুল হক বলেন, আসলে এই দুঃসময়ে সবারই নিজ নিজ অবস্থান থেকে যারা বিপদগ্রস্ত তাদের পাশে দাঁড়ানো উচিত। আমি এই মানবিক দায়বদ্ধতা থেকেই এই কাজটি করে যাচ্ছি। বাহবা বা প্রচার পাওয়ার উদ্দেশ্য থেকে কাজটি করছি না বলেই এ ব্যাপারে গোপনীয়তা রক্ষা করছি। করোনা পরিস্থিতিতে নিম্নমধ্যবিত্ত-মধ্যবিত্ত যারা এখন একটু সাময়িক বেকায়দায় পড়েছেন, তাদের সেই বেকায়দাও একদিন কেটে যাবে। তাই এই দুঃসময়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোটা আমার কর্তব্য মনে করেছি।