ফরিপুরের মধুখালিতে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মির্জা আকরামুজ্জামান ফাউন্ডেশন।

 বিধান মন্ডল ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সরকারি নিষেধাজ্ঞায় স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন।বিশেষ করে অসহায় শ্রমজীবী মানুষ বেশ কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। অসহায়, শ্রমজীবী ও কর্মহীন এইসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মির্জা আকরামুজ্জামান ফাউন্ডেশন। ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ফরিপুরের মধুখালী পৌরসভার অসহায় কর্মহীন প্রায় ৪০০০ পরিবারের মাঝে ১ম পর্যায়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা অব্যাহত রয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার বিকেলে ৯ নং ওয়ার্ডের ৩৫০ জন কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। আগামীতে পর্যায়ক্রমে বাকি ওয়ার্ডগুলিতে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে। এছাড়া ফাউন্ডেশনের আয়োজনে একটি ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম তৃণমূল মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য কাজ শুরু করেছে। খাদ্য সামগ্রীর মাঝে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি তেল, ২ কেজি আলু, একটি সাবান, ১ কেজি লবণ এবং মাস্ক , জীবানু নাশক স্প্রে ও একটি ফলজ বৃক্ষ উপহার হিসেবে দেয়া হয়।

এছাড়া এ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পৌর এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডের মসজিদে ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেম কে রোজার মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী উপহার হিসেবে দেয়া হবে। এছাড়াও করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতন করার লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারনা ,লিফলেট বিতারন করা হয়েছে । পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্নস্থানে ওয়াশ বেসিন স্থাপন করা হয়েছে। সার্বক্ষনিকভাবে ২ টি এ্যাম্বুলেন্সের ব্যাবস্থা রাখা হয়েছে।নিয়মিত বাজার এলাকায় জীবাণুনাশক ও মশার ওষুধ ছিটানো হচ্ছে।

আজকের খাদ্য সহায়তা বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন মধুখালী উপজেলা আ’লীগ সভাপতি, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা মির্জা মনিরুজ্জামান বাচ্চু, ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি মির্জা শাহারিয়ার লোটাস, মধুখালী বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও মধুখালী উন্নয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মির্জা মাঝহারুল ইসলাম মিলন প্রমূখ।

এ বিষয়ে মধুখালী বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মির্জা মাঝহারুল ইসলাম মিলন বলেন, ‘সারা দেশের ন্যায় বর্তমান পরিস্থিতে মধুখালীর খেটে খাওয়া মানুষ কর্মহীন হয়ে ঘরে বসে আছে।শ্রমজীবী মানুষ বেশ কষ্টে আছে। মানবিক বিবেচনায় আমার যতটুকু সম্ভব হয়েছে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। সমাজের বিত্তমান সকলের প্রতি অনুরোধ দয়া করে কেউ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি না করে, যার যা সুযোগ ও সামর্থ্য আছে অসহায় মানুষের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। ।’ মির্জা আকরামুজ্জামান ফাউন্ডেশনের যেসব কর্মী এ কাজে সহযোগিতা করছে তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।