ফরিদপুরে নানা আয়োজনে পল্লীকবি জসীমউদ্দীন এর ৪৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত।


শরিফুল হাসান, ফরিদপুর থেকে: নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে ফরিদপুরে পল্লীকবি জসীমউদ্দীন এর ৪৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টায় সদর উপজেলার অম্বিকাপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের ডালিম গাছের প্রাদদেশে পল্লীকবির কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মো: আলিমুজ্জামান, আনসার উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন।

এ সময় কবি’র স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পুস্পস্তব অর্পণ শেষে কবি’র বাড়ি প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রোকসানা রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছেলেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মো: আলিমুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপক কুমার রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা, প্রফেসর এম এ সামাদ, প্রফেসর মোহাম্মদ শাহজাহান, ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মাসুম রেজা।

আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বাহিনীর বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা, সরকারি বিভিন্ন দপ্তর, কবি পরিবারের সদস্যবৃন্দ, আনসার উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক- শিক্ষার্থীবৃন্দ, কবি’র প্রতিবেশি, স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখ্য ১৯৭৬ সালের ১৪ মার্চ এই দিনে তিনি ঢাকায় ইন্তেকাল করেন। পরে তাঁকে ফরিদপুর সদর উপজেলার অম্বিকাপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর পৈত্রিক বাড়ির তাঁর প্রিয় ডালিম গাছের তলায় দাফন করা হয়।

বাংলা সাহিত্যের পল্লী রুপকথার অন্যতম জনপ্রিয় ও শক্তিশালী এ কবির লেখা উপন্যাস বেদের মেয়ে, সোজনবাদিয়ার ঘাট, নকশীকাঁথার মাঠসহ কবর, নিমন্ত্রণ ও আসমানী কবিতা আজও পাঠকের মনে তীব্রভাবে নাড়া দেয়।