ফরিদপুরের সালথা প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জনাব জাহাঙ্গীর আলম শাহজাহান। 

ছবি: জাহাঙ্গীর আলম শাহজাহান। 

বিধান মন্ডল সালথা: ফরিদপুরের সালথা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম শাহজাহানকে প্রেসক্লাবের  ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়েছে। বুধবার (১৫ এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৩টায় প্রেসক্লাবের এক জরুরী সভায় ক্লাবের সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে তাকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়।

সভার শুরুতে, সালথা প্রেসক্লাবের অর্থ আত্মসাত সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে সভাপতি মোঃ সেলিম মোল্লা”কে বহিস্কার করা হয়। ক্লাবের সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে এ বহিস্কার করা হয়। একই সাথে ১৫ দিনের মধ্যে প্রেসক্লাবের নামে আত্মসাতকৃত সরকারী বরাদ্দ ১লাখ টাকা প্রেসক্লাবের অনুকূলে ফেরত দেওয়া জন্য তাকে বলা হয়েছে। প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম শাহজাহানের সভাপতিত্বে প্রেসক্লাবের জরুরী সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি এম.কিউ হোসাইন বুলবুল (যায়যায়দিন), আবু নাসের হুসাইন (নবচেতনা, ভোরের প্রত্যাশা), সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নাহিদ (ইত্তেফাক), অর্থ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মারুফ (বাংলার কথা), দপ্তর সম্পাদক মজিবুর রহমান (আমার সংবাদ), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মনির মোল্লা (আজকালের খবর), কার্যনির্বাহী সদস্য হারুন-অর-রশীদ (বিডি২৪লাইভ, সময়ের কন্ঠস্বর) আজিজুর রহমান (দৈনিক সংবাদ), সাইফুল ইসলাম (দৈনিক সমকাল) মোঃ শফিকুল ইসলাম (নিউজ ওয়ান২৪), মোঃ মোশারফ হোসেন (ভোরের ডাক), মোঃ আরিফুল ইসলাম (নাগরিক দাবী), সাধারণ সদস্য বিধান মন্ডল, (বাংলায় প্রতিদিন)।

এ ব্যাপারে সেলিম মোল্লা বলেন, “আমি কাজের ব্যস্ততার কারনে ক্লাবের সহ-সভাপতি চৌধুরী মাহমুদ আশরাফ টুটুকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছি। সভাপতির অনুমতি ছাড়া সভা করা গঠনতন্ত্রের পরিপন্থি। যারা ব্যক্তি স্বার্থে অবৈধ সুবিধা ভোগ করতে পারেনি, এমন একাংশ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি এখনও ক্লাবের সভাপতি আছি।