প্রেমিকার বাড়ি থেকে প্রেমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বিধান মন্ডল ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের কঠুরাকান্দি গ্রামের বানা ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি শরীফ হারুন অর রশীদের দ্বিতলা ভবনের নিচতলার এক কক্ষ থেকে শুক্রবার রাত ২টার দিকে আশিক রানা (১৬) নামে এক কিশোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। নিহত আশিক রানা একই গ্রামের সৌদি প্রবাসি আলমগীর হোসেন শেখের ছেলে।

আশিক ফরিদপুর মুসলিম মিশনের দ্বাদশ শ্রেণীর দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। হত্যা না আত্মহত্যা এ বিষয় তথ্য উদঘাটন করা সম্ভব হয় নাই। তবে এশাধিক ব্যক্তি বলেন, প্রেম ঘটিত বিষয় নিয়ে এ ধরণের ঘটনা ঘটাতে পারে। সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, হারুন অর রশিদের ৮ম শ্রেণী পড়–য়া মেয়ের সাথে আশিকের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এই প্রমের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের মধ্যে কলহ বয়ে আসছে।

এর জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। এ ব্যাপারে বানা ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আশিকের কাকা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমার ভাতিজাকে কৌশলে ডেকে নিয়ে হারুন গং হত্যা করেছে। প্রেমের বিষয় সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে তিনি দাবি করেন।
বানা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. খোকন বলেন, এলাকায় গুনঞ্জন ছড়িয়েছে হারুন শরীফের মেয়ের সাথে আশিকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

সেই প্রেমের জের ধরে তাকে হত্যা করা হতে পারে। এ ঘটনায় পুলিশ হারুন শরীফের ছোট ভাই নজরুল শরীফ, তার মেয়েকেসহ ৫ জনকে ওই বাড়ী থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের বিষয় নিশ্চিত করে ওসি রেজাউল করিম বলেন, স্থানীয়দের খবরে ঘটনাস্থলে পৌছে লাশটি উদ্ধার করি। তবে প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদনের পর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সুরতহাল রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে মৃত্যু আসল রহস্য।