পোরশায় ধানের জমিতে বিষ প্রয়োগ ঘটনার ১০ দিনেও মামলা রেকর্ড করা হইনি


সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর পোরশায় জমি জমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২৮ বিঘা জমিতে রোপিত ধানে ঘাস মারা বিষ প্রয়োগের ঘটনায় পোরশা থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করা হলে তা ১০ দিনেও মামলা রেকর্ড করা হইনি মর্মে অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগী সাপাহার উপজেলার শ্রীধরবাটি ইসলামপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মনিরুল ইসলাম (২৮) জানান, উপজেলার বিলকৃষ্ণসদা এলাকার ১ নম্বর আরএস খতিয়ানের ১১০৭ ও ৬২৫ নম্বর দাগে ২৮ বিঘা জমি দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের ভোগ দখলে আছে। গত ১ এপ্রিল রাত্রি পৌনে ১০ টার দিকে পোরশা থানাধীন ইসলামপুর গ্রামের মৃত ইউনুস আলীর ছেলে শীষ মোহাম্মদ (৬৫) এর নেতৃত্বে ১৬/১৭ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল কাঁধে বিষ স্প্রে করা মেশিন নিয়ে ওই জমিতে অবৈধ অনুপ্রবেশ করে।

এবং আমার রোপিত ২৮ বিঘা জমির ধানে ঘাস মারা বিষ প্রয়োগ করে। ঘটনা টের পেয়ে আমি তাদের বাধা নিষেদ করতে গেলে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ও ভয়ভীতি সহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে ওই সংঘবদ্ধ দল। ফলে ওই জমির সমস্ত ধান বিনষ্ঠ হয়ে প্রায় ৬ লক্ষ টাকা ক্ষতি সাধান হয়। এ ঘটনায় ৪ এপ্রিল শীষ মোহাম্মদ (৬৫) কে ১ নং বিবাদী করে ১২ জন সহ আরও ৪/৫ জন অজ্ঞাত নামা বিবাদী উল্লেখ করে পোরশা থানায় মামলা রেকর্ড ভুক্ত করার লক্ষ্যে এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

এজাহার দাখিলের ১০ দিন পার হলেও নানা কারন দেখিয়ে মামলাটি রেকর্ড ভুক্ত করেনি পোরশা থানা পুলিশ বলে মর্মাহত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান ঐ ভুক্তভোগী মনিরুল ইসলাম। এবিষয়ে পোরশা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহীনুর রহমানের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি সাপাহার সার্কেল) বিনয় কুমার বলেন, এসংক্রান্ত একটি এজাহার গ্রহন করা হয়েছে এবং মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান তিনি।