পাওনা টাকা দিতে না পারায় হামলার শিকার হয়েছে এক অসহায় পরিবার।

নিউজ ডেস্ক: সারাবিশ্বের মহামারী এই করোনা ভাইরাস এর প্রাদুর্ভাবে, ঘর বন্দী হয়েপড়ে, কর্মহীন ও অসহায় মানুষগুলো। ঠিক সেই সময় কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়ন এর তালবাড়িয়া গ্রামে,  সিদ্দিক মিধ্যার বাড়িতে পাওনা টাকা আদায় করার দাবিতে গিয়েছিলেন একই মহল্লার প্রভাবশালী ও বিত্তবান ব্যক্তি মোঃ ইচাহাক, ও তার ছেলে মুকিম। পাওনা টাকা দিতে না পারায় হামলার শিকার হলেন সিদ্দিক মিধ্যর পরিবার।

এবিষয়ে, আহতর সিদ্দিক মিধ্যার ছেলে মোঃ শাকিল জানান, বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল-২০২০) সকাল আনুমানিক ৬ টার সময় ইছাহাক (ইচা) ও মুকিম আমার বাড়িতে এসে টাকার কথাবলেন, আমি বললাম তামাক  বিক্রিয় করে, টাকা দিয়ে দেবো, একটু সময় দেন, করোনা ভাইরাসের কারণে তামাকের ব্যাপারি আসছে না, তামাকের হাট-বাজারগুলো বন্ধ।

আর তখন ইচার ছেলে মুকিম, অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করে, গালি গালাজ করতে  থাকে, তর্কবিতর্কের মাঝে  আমার বাবার মাথার ওপরে ইট দিয়ে আঘাত করে। ইচার ছেলে আমার মাকে আঘাত করে, আমাকে ও কিল ঘুষি মেরেছে,  আমাদের চিৎকার শুনে এলাকার স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে, জনগণের উপস্থিতি টের পেয়ে হামলা কারীরা পালিয়ে যায়। এমতাবস্থায় সিদ্দিক মিধ্যা- সহ একই পরিবারের তিনজন কে কুষ্টিয়া মিরপুর  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে ও ব্যাপারে কালিদাসপুর পুলিশ ক্যাম্পে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় মেম্বার আব্দুল আলীম এর কাছে জানতে চাইলে, তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল মারামারি ঘটনা শুনে আমি গিয়েছিলাম, ঘটনাটি সত্য, সিদ্দিক মিধ্যার মাথার ওপরে কি দিয়ে আঘাত করেছে তা জানি না তবে আঘাত টি  গুরুতর।

দ্বিতীয় পর্ব দেখতে চোখ রাখুন ”বাংলায় প্রতিদিন”