পঞ্চাশ বছর পর বাড়িতে বিদ্যুতের আলো

রেজা মাহমুদ, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে জানতে পেরে নীলফামারীর সৈয়দপুরে থানার অফিসার ইনচার্জ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য দাঁড়ালেন এক অসহায় পরিবারের পাশে। তাদের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় দীর্ঘ ৫০ বছর পর অসহায় পরিবারটির ঘর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হলো।

প্রভাবশালী প্রতিবেশির বাধার কারনে এতদিন বিদ্যুতের আলো থেকে বঞ্চিত ছিল পরিবারটি। গত বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ এর উদ্বোধন করেন সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। জানা গেছে, ১৯৪৭ সালের পর থেকে শহরের বাশবাড়ি এলাকায় ঈসমাইল হোসেন, ইলিয়াস এবং হায়দার আলী নামের তিন সহদোরের বসবাস করে আসছেন।

বর্তমানে ওই তিন ভাইসহ ১৩ জন পরিবারের সদস্য তিন শতকের এক টুকরো জমির উপর বাড়ি করে অতি কস্টে দিন যাপন করেন। অর্থ কষ্টের পাশাপাশি বিদ্যুৎহীন অন্ধকার জীবন তাদেরকে আরও বেশী কষ্টের মধ্যে ফেলেছিল। এর আগে সৈয়দপুর বিদ্যুৎ বিভাগে একাধিকবার আবেদন করার পরও প্রতিবেশী নূর হোসেন ও গোলাপ প্রভাব খাটিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে দেয়নি।

অসহায় ওই পরিবারটির নিজস্ব জমি না থাকায় ওই প্রতিবেশিদ্বয় তাদের জমির উপর দিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগে বাধা দিয়ে আসছিল। তাদের সেই বাধাতেই দীর্ঘদিন অন্ধকারেই জীবন যাপন করছিল পরিবারটি। তামিম রহমান নামের এক ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট দেয়ার পর বিষয়টি নজরে আসে সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক মহসিনের এবং আওয়ামী লীগ নেতা একেএম রাশেদুজ্জামান রাশেদের।

বিদ্যুৎ সংযোগ বিষয়ে বাঁধা প্রদানের প্রতিবাদে ওই পরিবারটি মানববন্ধন কর্মসূচি গ্রহণ করার প্রস্তুতি নিলে ওই নেতৃদ্বয় পরিবারটির সাথে একাত্বতা ঘোষনা করে। পরে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসনাত চৌধুরী ওই পরিবারটিকে বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে সর্বাত্বক সহযোগিতার আশ্বাস দেয়ায় মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) দেয়া হয় বিদ্যুৎ সংযোগ। ওই দিন সন্ধায় ওই অসহায়ের বাড়িতে আনুষ্ঠানিকভাবে সুইচ টিপে বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধন করেন থানার ওই কর্মকর্তা এবং আওয়ামী লীগের ওই দুইনেতাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। উদ্বোধনকালে মহসিনুল হক মহসিন উপহারস্বরূপ ওই পরিবারের হাতে একটি ফ্যান তুলে দেন।

এবং প্রকৌশলী রাশেদুজ্জামান একটি টয়লেট নির্মাণ করে দিবেন বলে ঘোষনা দেন। এ ব্যাপারে ওই পরিবারের ঈসমাইল বলেন,বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন জায়গায় ধর্ণা দিয়ে আসছি। অবশেষে যাদের সহযোগিতায় সংযোগ পেয়েছেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি। সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসনাত বলেন, অসহায় ওই পরিবারে দীর্ঘদিনের বিদ্যুতের সমস্যা সমাধান করা হয়েছে। বাধাদান প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন এ ব্যাপারে কোন লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।