নোয়াখালীতে প্রতিপক্ষের শতাধিক চারা গাছ কেটে জমি দখলের চেষ্টা

আবুল হাসনাত বাবুল, নোয়াখালী: নোয়াখালীতে জমির মালিকানা দাবীতে সন্ত্রাসী কায়দায় প্রতিপক্ষের বাড়ীতে প্রকাশ্যে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এসময় বাড়ীর সীমানা অংশে প্রায় শতাধিক চারা গাছ কর্তন করে ফেলেছে। নোয়াখালীর কবির হাট উপজেলার ৩নং ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের নবগ্রাম এলাকায় বেলায়েত মিয়ার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটেছে।স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলায়েত মিয়ার ছেলেরা দীর্ঘদিন ধরে তাদের নিজের মালিকীয় বন্দোবস্তীয় জমিতে বসবাস করে আসছে। জমি সংক্রান্ত বিষয়ে কখনো কারো সাথে কোন প্রকার বিরোধ ছিলো না।

হঠাৎ গত কয়েকদিন আগে ইসমাইল বাহিনী তার সঙ্গীয় ক্যাডারদের নিয়ে এসে ফারুক হোসেন ও মামুন উদ্দিনকে ডেকে তাদের কাছে জমি পাবে বলে দাবী জানায়। তারা বিষয়টি সমাধানের জন্য জমির পরিমাপ করতে স্থানীয় আমিন আনতে বলে। কিন্তু ইসমাইল বাহিনী তাতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সে জোর পূর্বক দখল নিবে বলে হুমকী ধমকী দিয়ে চলে যায়। হঠাৎ আজ সকাল ১১টায় ইসমাইল বাহিনী তার সঙ্গীয় ইদ্রিস, ইউনুছ,মিজান, হারুন আমির হোসেন, কামরুল ইসলামসহ ৭০/৮০ জন বহিরাগত ক্যাডার ও সন্ত্রাসী বাহিনী এনে ফারুক, মামুনদের বাড়ীতে দেশীয় অস্ত্র কিরিজ, রামদা, বগিদা, রড় ও চেনি নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়।

ঘরের ভিতরে ডুকতে না পেরে বাড়ীর বাহিরে থাকা জিনিসপত্র ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে। এসয়ম বাড়ীতে কাউকে না পেয়ে সিমান অংশে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় শতাধিক চারা গাছ কেটে সাবাড় করে চলে যায়। এঘটনায় মৃত বেলায়েত হোসেনের ছেলে মোঃ ফারুক হোসেন ১৩জনকে আসামী করে কবিরহাট থানায় একটি মামলা করেছে।

এদিকে ভুক্তভোগী পরিবারের বড় ছেলে মোঃ ফারুক হোসেন জানান, ইসমাইল বাহিনী আমাদের নিকট কোন জমি পাবে না। সে আমাদের মালিকীয় জমি সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে জোরপূর্বক জবর দখল করতে চাই। এঘটনায় কবিরহাট থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে। আমরা এঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা হোক। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচার চাই।

এব্যাপারে কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাসান জানান, আমি ঘটনাটি শুনেছি। এবিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবার থানায় একটি অভিযোগ করেছে। স্থানীয় চেয়ারম্যানের সাথে কথা হয়েছে। উভয়পক্ষকে থানায় ডেকে এনে সামাজিক ভাবে বিষয়টি সমাধান করে দেওয়া হবে। আর যদি ঘটনাটি সমাধান করতে না পারি তাহলে অভিযোগটি আদালতে পাঠিয়ে দিবো।