নোয়াখালীতে জাতীয় শোক দিবস পালনে বাঁধা ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সদর উপজেলার চরমটুয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড লক্ষীনারায়নপুর গ্রামের কাজী মার্কেটের সামনে প্রধান সড়কে ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। আজ রবিবার দুপুরে কাজী মাকের্টের সামনে জাতীয় শোক দিবস পালনে বাধা ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করার প্রতিবাদে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

ফখরুল ইসলাম কাজল মিয়ার সভাপতিত্বে উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নোয়াখালী সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ কাজী হাসান, ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আমিনুল হক, ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা শাহাদাত হোসেন সহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

এসময় বক্তারা বলেন, গতকাল ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে উদয় সাধুর হাট (ওদারহাট ) বাজারের ব্যবসায়ী আল-মদিনা শপিং সেন্টারের মালিক মোঃ আবু তাহের ওরপে আবদুল মালেক জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন না করায় আমরা প্রতিবাদ করি এবং তাকে পতাকা উত্তোলনের জন্য অনুরোধ করি। এই নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আবু তাহের ক ওরপে আব্দুল মালেক জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করে। এমনকি এক কল্লা দিয়ে কত বার
চাঁদা বাজী করবি।

এই বলে হুমকি প্রদান করে। আমরা কোন প্রকার সংঘর্ষ যাতে না হয় তার জন্য সেখান থেকে চলে যাই। পরবর্তীতে গভীর রাতে কাজী হাসানের বসতবাড়িতে হামলার পরিকল্পনা করলে স্থানীয় আওয়ামীলীগের লোকজন টের পেয়ে পাহারা দেওয়ায় হামলা করতে না পেরে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধমকি প্রধান করে আসছে। বক্তারা আরো বলেন বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে জামাতের গডফাদার ও অর্থ যোগান দাতা আবু তাহের ওরপে আবদুল মালেকের এ কর্মকান্ডে এলাকার লোকজন আতংকিত।

মানববন্ধন থেকে বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্থানীয় সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী এবং জেলা প্রশাসক মোঃ খোরশেদ আলম খান ও পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এবং আবু তাহেরের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন। ঘন্টাব্যাপি এই মানবন্ধনে দুই শতাধিক নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।