নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দশমিনায় বহুতল ভবন নির্মাণ।


দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা সদরের মূল বাজারের মানিক মিয়া চত্তরে সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে খাস জমি দখল করে বহুতল পাকা ভবন নির্মাণ করছে বিএনপি’র এক নেতা। পুনরায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কাজ করলে উপজেলা ভূমি অফিস খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। নির্দেশ উপেক্ষা করে কাজ করলে থানা পুলিশ নির্মানকাজ চলা কালিন ৪জন শ্রমিককে আটক করে
থানায় নিয়ে যায়।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদরের মূল বাজারের মধ্যে সরকারি সম্পত্তি দখল করে বহুতল পাকা ভবন নির্মাণ করছে বিএনপি’র এক নেতা। অভিযোগ উঠেছে, ওই নেতা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনাও মানছে না। এব্যপারে সরকারি বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বে থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার। সরেজমিন জানা গেছে, স্থানীয় আবুল কালাম প্যাদার ছেলে বিএনপি নেতা মো. সোহেল প্যাদা দশমিনার ১ নং মৌজার ১ নং খাস খতিয়ানের ৩ ও ৪ নং দাগের ৪ শতাংশ জমি দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে।

সরকারি সম্পত্তিতে অবৈধভাবে ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধে স্থানীয় জনৈক বেল্লাল হোসেন জেলা প্রশাসকের নিকট অভিযোগ দায়ের করলে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিস থেকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিলেও সোহেল সে নির্দেশনায় কর্ণপাত না করে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যায়। নির্মাণাধিন ভবনটি দশমিনা বাজারের মধ্যস্থলে হওয়ায় বিষয়টি সকলের দৃষ্টিতে আসে। দশমিনা থানা ওসি এসএম জালাল উদ্দিন বলেন, মুঠোফোনে সহকারী ভূমি কমিশনার সরকারি খাস জমি দখল করে বহুতল ভবন নির্মান কাজ করে বলে জানান সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাই এবং কাজ করা অবস্থায় ৪জন শ্রমিককে আটক করে থানায় আনা হয়।

পরে নির্মান কাজ বন্ধ রাখবে মর্মে সোহেল কথা দিলে আটক শ্রমিকদের ছেড়ে দেয়া হয়। এব্যপারে অতিরিক্ত দায়িতে¦ থাকা সহকারী কমিশনার ভূমি গলাচিপা মো.সুহৃদ সালেহীন জানান, থানা পুলিশের মাধ্যমে বহুতল ভবন নির্মান কাজ বন্ধ করি। কাজ করা অবস্থায় ৪জন নির্মান শ্রমিককে আটক করে। আর খাস জমিতে কাজ না করার শর্তে আটককৃতদেরকে থানা পুলিশ ছেড়ে দেয়। এ ব্যাপারে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।