দৌলতপুরে কর্তৃপক্ষের অবহেলায় শ্রমিকের মৃত্যুর অভিযোগ

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ওইমেক্স ইলেকট্রোড ফ্যাক্টরির এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, গত শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে ওইমেক্স ইলেকট্রোড ফ্যাক্টরিতে তাজিমুল ইসলাম নামের এক শ্রমিক হঠাৎ ড্রইং সেকশনের কাজ করা অবস্থায় পাইপ ছিটকে পড়ে মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হয়।

সে সময় ওই ফ্যাক্টরির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কোন সহযোগীতা না পেয়ে এবং ফ্যাক্টরিতে প্রাথমিক চিকিৎসার কোনো সরঞ্জাম না থাকায় সহকর্মীরা পার্শ্ববর্তী মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুষ্টিয়া সদর হসপিটালে হবে পাঠানো হয় , সেখানে থাকা কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শ্রমিক জানান সেসময় ফ্যাক্টরির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেও কোনো ব্যবস্থা না করায় অল্প সময়ের মধ্যে তাজিমুলের মৃত্যু হয়।

মৃত তাজিমুল ইসলাম পার্শ্ববর্তী মিরপুর উপজেলার আটিগ্রামের আসাদুল ইসলামের ছেলে। এদিকে, এ ঘটনায় ওইমেক্স ইলেকট্রোড ফ্যাক্টরির শ্রমিকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো এক শ্রমিক জানান- আমরা প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে এখানে কাজ করি, আমাদের কোন প্রকার সেফটির ব্যবস্থা নেই। যে পরিমাণ ঝুঁকি নিয়ে কাজ করি সে তুলনায় বেতন অত্যন্ত সীমিত, আমরা বেতন বাড়ানোর কথা বললে কর্তৃপক্ষ কর্মী ছাঁটাইয়ের হুমকি দেয় এমনকি অনেকেই ছাঁটাইও করে।

অভিযোগ আছে আবাসিক এলাকায় ও ফসলি জমির মাঝখানে ওই ফ্যাক্টরিতে প্রতিনিয়ত পোড়ানো হচ্ছে কাঠ, এতে পরিবেশের ভারসাম্য হারাচ্ছে, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আশেপাশের ফসলের জমি। এই মৃত্যুকে কেন্দ্র করে সাংবাদিকরা সেখানে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে কোন প্রকার তথ্য না দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির মূল দরজা তালা দিয়ে রাখা হয়।

ওই ফ্যাক্টরির দায়িত্ব থাকা ম্যানেজার হাসান আলীর কাছে মুঠোফোনে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন প্রকার দায় না নিয়ে জানান-আমরা ঐ কাজ রুবেল নামের এক শ্রমিকের কাছে কন্টাক্ট দিয়েছি, আপনাদের কিছু জানার থাকলে রুবেলের সাথে কথা বলেন। এ ব্যাপারে দৌলতপুর থানার (ওসি) নিশিকান্ত সরকার জানান আমরা বিষয়টি শুনেছি কিন্তু এ পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।