দৌলতপুরের ৯ নং রিফাইতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার রিফাইতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আজ বিকেল ৪ ঘটিকার সময় রিফাইতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খাঁন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া -১ আসনের সংসদ সদস্য- আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ্।

নিউজ ডেক্স: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার রিফাইতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আজ বিকেল ৪ ঘটিকার সময় রিফাইতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খাঁন,সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কুষ্টিয়া জেলা শাখা, প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগার আলী, উদ্বোধন করেন দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ সদস্য জনাব আফাজ উদ্দিন আহমেদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া -১ আসনের সংসদ সদস্য- আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ্। জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতপুর উপজেলা সম্মেলনের সমন্বয়ক প্রকৌশলী ফারুক উজ জামান, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আলহাজ¦ এড. হাসানুল আসকার হাসু, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আলহাজ্ব রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, নির্বাহী সদস্য লিয়াকত আলী. দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ¦ রেজাউল হক চৌধুরী, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. শরীফ উদ্দিন রিমন, এছাড়াও বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক অধ্যক্ষ ছাদিকুজ্জামান সুমন।

 

সভাপতিত্ব করেন মোঃ আব্দুর রশিদ, ৯ নং রিফাইতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ শাখা, পরিচালনা করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সেকেন্দার আলী, সাধারণ সম্পাদক ৯ নং রিফাইতপুর ইউনিয়ন শাখা। বিশেষ অতিথির কুষ্টিয়া -১ আসনের সংসদ সদস্য- আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ বলেন,দলে অনু-প্রবেশকারীদের একেক করে ছাটাই করা হবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কচুর পাতার উপরে পানি নয়, যে ধাক্কা দিলে পড়ে যাবে। আমাদের শিকড় অনেক গভীরে। যারা সত্যিকারের বঙ্গবন্ধুর সৈনিক, যারা আওয়ামীলীগ করে তারা কখনও সুবিধাবাদী হতে পারে না। আর যারা সুযোগ সন্ধানী, অর্থলোভী, দুর্নীতিবাজ তারা কখনও আওয়ামীলীগ করতে পারে না। তাদের কোন স্থান নেই। তিনি আরও বলেন, মাদক, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও সমাজ বিরোধী কাজে জড়িতদের এই সংগঠন থেকে ঝেটিয়ে বিদায় করা হবে।

সামনে স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে আমাদের লড়াই আসছে। ওরা বসে নেই। আমাদেরও সেই লড়াইয়ে প্রস্তুত থাকতে হবে। এরজন্য তৃণমুল থেকে পরীক্ষিতদের মুল্যায়ন করা হবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতপুর উপজেলা সম্মেলনের সমন্বয়ক প্রকৌশলী ফারুক উজ জামান বলেন, প্রতিটি সম্মেলনে ত্যাগী ও পরীক্ষিতদের মুল্যায়ন করা হবে।

স্বাধীনতা বিরোধীরা কৌশল নিয়ে আওয়ামীলীগে জায়গা করে নিতে তৎপর। ওরা ঘরের শত্রু বিভীষণ হতে চায়। কিন্তু সে সুযোগ আমরা তাদের দেবোন। এই বিষয়টা মাথায় রেখে কাউন্সিলরদের প্রতি আমার অনুরোধ আপনারা ত্যাগী নেতাকর্মীদের বেছে নিন। তাদের মুল্যায়ন করুন। প্রকৌশলী ফারুক উজ জামান আরও বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযান সফল করতে ত্যাগীদের মুল্যায়ন করা হবে।

এর কোন ব্যঘাত ঘটবে না। কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতি পদে ২২ জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ২২ টি প্যানেল পড়ায় নেতৃবৃন্দ দলে তাদের ত্যাগ, পারিবারিক রাজনৈতিক অবস্থানসহ সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে নেতা-কর্মীদের সাথে বসে কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানান। উপস্থিত সকলে স্বতস্ফুর্তভাবে এই প্রস্তাব মেনে নেয়।