দশমিনা বাজার সংলগ্ন আয়রন সেতুটি এখন মরণফাঁদ

দশমিনা(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: চলাচলের ব্রিজ যদি মরণ ফাঁদ তাহলে বিনষ্ট হতে পারে সুখের সমাজ পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের কাচাঁবাজার দিয়ে যাওয়া আশা ইউনিয়নের নতুন ব্রিজ বাজার সংলগ্নে নদীর খালের ওপর নির্মিত আয়রন সেতুটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।

এতে জন দুভোর্গে পড়েছে নিত্য প্রয়োজনিয় পণ্য কেনাকাটা করতে বাজারে আশা যাওয়া হাজারো মানুষ । যে কোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা এই হতাশার মধ্য দিয়ে দিনের পর দিন সময় পার করছে স্থানীয়রাসহ চরমদূর্ভোগে যাতায়াত করা মানুষগুলো । আয়রন সেতু দিয়ে সবসময় চলাচল করে স্থানীয়রাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে হাট বাজারে আশা গ্রামের গঞ্জের লোকজন যাতায়াত করে।

এবং এটা দশমিনা নলখোলাসহ ও কাচাঁবাজার হয়ে দশমিনা সদর উপজেলা সদরে যাতায়াত করার একমাত্র পথ এটি। কিন্তু এটা গত দুই বছরেরও আগে সেতুটি জরাজির্ন অবস্থায় পরিণত হয়। যা ধীরে ধীরে এখন পুরোপুরি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। আয়রন সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন জীবনের ঝুকিঁ নিয়েও যাতায়াত করে বিদ্যালয় ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা।

এবং চলার পথে ঘটে যাচ্ছে অনেক দুর্ঘটনা । এতে অভিভাবকদের চিন্তার শেষ নেই। দশমিনা নলখোলা বাজারের প্রতিষ্ঠিত বয়বসায়ি আলহাজ্ব কামাল হোসেন বলেন, দশমিনা সদরে রয়েছে মৎস্য বাজার, কাচা বাজার, মুরগীর বাজার, সপিংমল এবং নলখোলা রয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, স্বর্নের দোকান ,চাউলের আড়ৎ, এবং বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান দৈনিক স্কুল/কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী সহ জীবনের ঝুকি নিয়ে পরাপার হতে হয় এই ব্রিজ দিয়ে।

এ বিষয়ে দশমিনা উপজেলা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও দশমিনা উপজেলা আ`লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ ইকবাল মাহমুদ লিটন বলেন, এই আয়রন সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করছে কয়েক হাজার মানুষ । এখন যাতায়ত করাই মহামুশকিল হয়ে পড়েছে । সেতুটি দ্রুত সংষ্কার হলে আমরা বড় ধরনের দুশ্চিন্তা হতে বেঁচে যেতাম। এই প্রত্যাশা বুকে ধারন করে প্রতিনিয়ত মরণ ফাঁদ আয়রন সেতুটি পার হচ্ছে স্থানীয়রা, তাদের প্রত্যাশার ফলন অতি দ্রুতই সেতুটি নির্মান হবে এমনটাই দাবি এলাকাবাসীদের ।

এ বিষয়ে পটুয়াখালী১১৩,দশমিনা-গলাচিপা আসনের সংসদ সদস্য এস এম সাহাজাদা এমপি বলেন, ব্রীজটি অনেক পুরানো নতুন ভাবে নির্মান করার প্রক্রিয়া চলোমা দ্রুত কাজ শুরু হবে আশাকরি। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম মুঠোফোনে বলেন, নতুন গার্ডার ব্রিজ অনুর্ধো ১০০ মিঃ ব্রিজ প্রকল্পের অধীনে সলটেস ডিজাইন টেন্ডার প্রক্রিয়াদিন রয়েছে আশা করি আগামী ৬ মাসের মধ্যে কাজ শুরু করা হবে।