ঝুঁকিপূর্ণ প্রথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান

১৩ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ, ঝুঁকিপূর্ণ ও পরিত্যক্ত ভবন।
১৩ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ, ঝুঁকিপূর্ণ ও পরিত্যক্ত ভবন।

দশমিনা প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার ১৩ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ, ঝুঁকিপূর্ণ ও পরিত্যক্ত ভবন রয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ জরাজীর্ণ ভবনেই চলছে শিশুদের পাঠদান। এসব স্কুল ভবনের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে প্রায়শই। কোনোটির আবার নড়বড়ে অবস্থা। আর বিদ্যালয়ের ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় স্কুলে পাঠিয়ে দুশ্চিন্তার মধ্যে থাকেন অধিকাংশ অভিভাবক। এ ছাড়া এসব স্কুলের কোনো কোনোটিতে আবার খোলা আকাশের নিচে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান।দশমিনা উপজেলা শিক্ষা অফিস মু.জাহিদ হোসাইন জানিয়েছেন, এ উপজেলায় ১৪৫ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে মোট ১৩টি স্কুলের ভবন বর্তমানে জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ।

ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়গুলো হচ্ছে, পূর্ব খলিসাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,সৈয়দ জাফর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,চর ভোলাইশিং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,আদমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,দক্ষিণ দাসপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি,দাবাড়ী বেতাগী সদ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,উত্তর বহরমপুর সদ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি,কাউনিয়া সদ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,গোপালদি নিজাবাদ উ.সিংহের হাওলা সদ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি ও পশ্চিম আলীপুর শ্লুইজ সদ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট ও অবিভাবকরা দূরুত নতুন ভবন নিমার্ণের দাবি জানিয়েছেন। দশমিনা উপজেলা প্রকৌশলী মোঃজাহাঙ্গীর আলম বলেন, শিক্ষার্থীদের পাঠদানের সার্থে আগামী অর্থ বছর নতুন ভবন নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মোঃবেল্লাল হোসেন