জেলা প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে ক্ষুদ্রঋণ চালিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক


মাহাবুব আলম ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে ঠাকুরগাঁওয়ের অনেক বেক্তি প্রতিষ্ঠান নানা সচেতনতা মূলক উদ্দ্যোগে যেমন লিফল্টে বিতরণ ও সকল অফিসে প্রবেশের পূর্বে জীবানুনাশক সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সেই সাথে জেলায় সকল প্রকার ক্ষুদ্র ঋণ আদায় বন্ধ করেছে জেলা প্রসাশক। তবে বিশেষ প্রয়োজনে ঋণ বিতরণ ও সঞ্চয় উত্তোলন করতে পারবে গ্রহকরা।

অন্য দিকে ঠাকুরগাঁয়ে জেলা প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক আউলিয়াপুর শাখা সহ অন্য শাখার বেশ কিছু এনজিও । এ-নিয়ে কথা হয় গ্রামীণ ব্যাংক আউলিয়াপুর শাখা ম্যানেজার সকিউদ্দ জামানের সংগে । তিনি জানান আমাদের অফিসে এ-ধরনের কোন মেসেস্ না থাকায় আমারা যথা রীতি কার্জকর্ম চালিয়ে যাচ্ছি।

মঙ্গলবার সকালে গ্রামীণ ব্যাংক আউলিয়াপুর শাখার এক মাঠ কর্মি-কে কাজ করতে দেখা যায়,এ ছাড়া দেখা যায় সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলে মাঠ কর্মিরা মাহিলা ও বাচ্চা নিয়ে আসা ক্ষুদ্রঋণ গৃহিতাদের কাছে ৮/১০ একএি হয়ে ঋণ আদায় করছেন। অন্য দিকে ব্র্যাকের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (দাবি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, জেলায় সকল প্রকার ঋণ আদায় বন্ধ করা হয়েছে।

গ্রাহকদের আর্থিক অসুবিধার কথা চিন্তা করে সীমিত আকারে ঋণ বিতরণ ও সঞ্চয় উত্তোলন চালু রাখা হয়েছে। সেই সাথে ব্র্যাকের সকল কর্মীদের জন্য মাক্স, হ্যান্ড গ্লাভস নিশ্চিত করা হয়েছে। যে সকল গ্রাহক ব্র্যাক অফিসে প্রবেশ করছে তাদের দলগত ভাবে না এসে এক এক করে প্রবেশের জন্য বলা হয়েছে। ব্র্যাকের এই উদ্দ্যোগ গ্রহণের কারণে খুশি নিম্ন আয়ের ঋণ গৃহীত মানুষেরা।

ক‌রোনা ভাইরাস থে‌কে নিরাপ‌দে থাকার জন্য মাস্ক ও লিফ‌লেট বিতরন।