জীবনের ঝুকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন দশমিনা উপজেলার পোস্ট অফিস কর্মকর্তা,কর্মচারী।

মো: বেল্লাল হোসেন,দশমিনা উপজেলা প্রতিনিধি: পটুয়াখালী জেলার দশমিনা উপজেলার নির্মীত হয় ১৯৮৫ সনে দশমিনা উপজেলা পোস্ট অফিস ভবন। পোস্ট অফিস ভবন নির্মানের পর বিগত ৪-৫বছর পর্যন্ত জীবনের ঝুকিনিয়ে সরকারি দায়িত্ব পালন করে আসছে দশমিনা উপজেলা পোস্ট মাস্টার সহ ৬জন কর্মচারী। সামান্য বৃস্টি হলে ভবনের ছাদ গেমে পানি পরে এবং ভবনের বিভিন্ন স্থানে দেখাযায় ফাটল ও ছাদ ভেঙ্গে ভেঙ্গে টুকরো পড়ছে।

দশমিনা উপজেলা পোস্ট মাস্টার মোঃকাজী ইউসুব বলেন,এই ভবনটি ১৯৮৫ সালে নির্মান করা হয় । বর্তমানে অফিস পরিচালোনা করছি ৮জন ২জন আছেন উদ্ধাক্তা। সামান্য বৃস্টি হলে ছাদগেমে পানি পরে এবং মাঝে মধ্যে ছাদ থেকে প্লাস্টারের টুকরা ফ্লোরে পরে। তিনি আরো বলেন গত বছর উপরস্থ কর্মকর্তাদের মাধ্যমে ভবনটির ৩৬হাজার টাকার রিপাইরিং কাজ করেছি তাতে কিছুতেই কিছু হচ্ছেনা। অফিস চলাকালিন
সময় প্রায়ই ছাদের অংশ বিশেষ পরতে দেখায়ায়।

আমরা ভয়ে ভয়ে কাজ করছি। নতুন ভবনের জন্য এবং ভবনের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের অভহিত করা হয়েছে। ভবনটি অতি পুরাতন তাই সংস্কার নয় নতুন ভবন দরকার। দশমিনা উপজেলা ডিজিটাল পোস্ট অফিসের উদ্ধাক্তা মোঃমাহমুদুল হক সজিব জানান ,আমি ৪বছর হয় হয় দায়িত্বে আছি বর্তমানে ১৫টি মতো কম্পিউটা আছে, সামান্য বৃস্টি হলে ছাদগেমে পানি পরে এবং ছাদ থেকে প্লাস্টার এর টুকরো নিচে পরে এরই মধ্যে আমার ৩-৪টি কম্পিউটার পানি পরে নস্ট হয়েছে।

বর্তমানে ভবনটি যতদ্রæত সম্ভব নির্মান করা দরকার তানা হলে আমাদের প্রানের ঝুকি বিদ্যমান। পটুয়াখালী জেলার ডিজিটাল পোস্ট অফিস দক্ষিনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সালেহ মোহাম্মাদ মুসা মুঠো ফোনে বলেন, দশমিনা উপজেলা ডিজিটাল পোস্ট অফিস ভবনের টেন্ডার হয়েছে বর্তমানে করোনা ভাইরাস এর কারনে কাজ শুরু হচ্ছেনা।