চাঁদাবাজ সাংবাদিকদের প্রতিহত করার আহবান আল্লারদর্গা প্রেসক্লাবে একটি জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চাঁদাবাজ সাংবাদিকদের প্রতিহত করার আহবান ,বাম থেকে  খন্দকার জালাল উদ্দিন, সাইদুল আনাম, মাসুদুর রহমান মাসুদ,

দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার খুদ্র শিল্পনগরী আল্লারদর্গা বাজারে ইদানিং ভূঁইফোড়, চাঁদাবাজ, টাউট বাটপার, নেশা খোর ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেসবুক নির্ভর কথিত নামধারী সাংবাদিকদের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব সাংবাদিকরা বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে চাঁদাবাজিতে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসকল ভূঁইফোড় চাঁদাবাজ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে আল্লারদর্গা প্রেসক্লাবে একটি জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯ টার সময় আল্লারদর্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক বাংলাদেশ বার্তা পত্রিকার সাংবাদিক খন্দকার জালাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি ও সাপ্তাহিক সোনার বাংলা পত্রিকার সাংবাদিক গোলাম মোস্তফা, সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকার সাংবাদিক সাইদুল আনাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক সময়ের দিগন্ত পত্রিকার ষ্টাফ রিপোর্টার মাসুদুর রহমান মাসুদ, প্রচার সম্পাদক ও দৈনিক আজকের সূত্রপাত পত্রিকার সাংবাদিক সেলিম রেজা, সাংবাদিক আসিক ইসলাম ও ফটো সাংবাদিক মি. যোহন মন্ডল প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, পার্শ্ববতী ভেড়ামারা উপজেলা ও দৌলতপুর থেকে আল্লারদর্গা বাজারে এসে বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও পত্রিকার পরিচয় দিয়ে কিছু ভূঁইফোড়, চাঁদাবাজ, টাউট বাটপার, নেশা খোর ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেসবুক নির্ভর কথিত নামধারী সাংবাদিকরা সমপ্রতি আল্লারদর্গা বজারের হাজী বিরানী হাউজ, ঘোষ মিষ্টান্ন ভান্ডার, রফিক ফিলিং ষ্টেশন, বেলাল মেডিকেল সেন্টার ও আমেনা মেডিকেলে এসে ভয়ভিতী ও নিউজ করার কথা বলে হাজার হাজার টাকার চাঁদা আদায় করেছে বলে আল্লারদর্গা বাজারের ব্যবসায়িরা অভিযোগ করেছেন।

এসকল চাঁদাবাজ সাংবাদিকদের কারনে স্থানীয় প্রকৃত ও সৎ সাংবাদিকরা বিপাকে পড়েছেন ও তাদের বিব্রত কর অবস্থার সম্মুখিন হতে হচ্ছে। এতে সাংবাদিকদের সম্পর্কে সাধারন মানুষের বিরূপ ধারণা র্সষ্টি হয়েছে। বক্তারা বলেন, কোন ব্যবসায়ির বিরুদ্ধে অনিয়মও দূর্নীতির অভিযোগ পেলে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে তা জন সম্মুখে প্রকাশ করাই হচ্ছে একজন প্রকৃত সাংবাদিকের দায়িত্ব।

অথচ ঐসকল ভূঁইফোড় চাঁদাবাজ, টাউট বাটপার নেশা খোর সাংবাদিকরা কোন পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে সংবাদ পরিবেশন না করে আল্লারদর্গা বাজারের বিভিন্ন ক্লিনিক, বেকারী, মিষ্টির দোকান, বিরানী হাউজ ও তেল পাম্প সহ বিভিন্ন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে নিজেদের কে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রকৃত সাংবাদিকরা কখনো চাঁদাবাজি করে না, তারা কোন অনিয়ম দূনীতির অভিযোগ পেলে তা তদন্ত শেষে জন সম্মুখে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে থাকেন।

বক্তারা, এসময় আল্লারদর্গা বাজারের ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কোন ভূঁইফোড় চাঁদাবাজ, টাউট বাটপার, নেশা খোর ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেসবুক নির্ভর সাংবাদিক যদি আপনাদের নিকট সংবাদ পরিবেশন করার নামে অবৈধ ভাবে চাঁদা দাবি করে, তবে তাদের প্রতিহত করে দৌলতপুর থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করার জন্য আহবান জানান। এসময় আল্লারদর্গা প্রেসক্লাবের অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।