গোয়ালন্দে হাইব্রিড করোল্লা চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকেরা

অধিক ফলন ও লাভের আশায় আগে বাগেই হাইব্রিড করোল্লা চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে গোয়ালন্দের কৃষকেরা।

মোজাম্মেলহক(লালটু) (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি: রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার এবার অধিক ফলন ও লাভের আশায় আগে বাগেই হাইব্রিড করোল্লা চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে গোয়ালন্দের কৃষকেরা। জানা যায় যে,আমাদের দেশাল উচতার চেয়ে অনেক বেশি ফলন হয়ে থাকে হাইব্রিড করোল্লা। সে জন্য এবার হাইব্রিড করোল্লা নিযে বেশি ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকেরা।

এই হাইব্রিড করোল্লা আরেকটা বড় কারন হলো জমি থেকে বন্যার পানি চলে যাওয়ার সাথে সাথে সেই জমি কোন রকম আবাদ করে সে খানে বীজ রোপন করা যায়। কোন রকম এই হাইব্রিড করোল্লা বীজ নষ্ট হওয়ার সম্বনা খুবি কম। হাইব্রিড করোল্লা ক্ষেত কে অধিক পরিচর্যা করছে সেখানকার কৃষকেরা দেখতে অনেক সুন্দর লাগছে সবুজে ঘিরা হাইব্রিড করোল ক্ষেত তাহা বাতাসের সাথে দোল খাচ্ছে। কৃষক বাবুল শেখ বলেন, হাইব্রিড করোল্লা ক্ষেতটা মধ্যে কোন রকম ঘাস বা আগাছা থাকলে হাইব্রিড করোল্লার গাছ গুলো বড় হতে পারবে না সে জন্য ক্ষেত সব সময় পরিস্কার করে রাখতে হবে সময় মত সার ঔষধ দিতে হবে।

তা ছাড়া আমাদের দেশে যত ধরনের উচতা আছে তার মধ্যে হাইব্রিড করোল্লা ফলন সব চেয়ে বেশি এবং ক্ষেতে অনেক সুস্বাধ। জমির মালিক সবদুল বলেন, বন্যার কারনে অনেক দেরি হয়ে গেছে আমাদের জমি আবাদ করতে। আমার জমিটা অনেক উঁচু জমি থেকে বন্যার পানি চলে যাওয়ার কিছু দিন পরেই আমি ১বিঘা ২কাটা জমিতে হাইব্রিড করোল্লা আবাদ করেছি অধিক ফলন ও অধিক লাভের আশায়।

এই জাতের হাইব্রিড করোল্লা চাষে খরচ কম লাভ বেশি। এ বছরে আমার হাইব্রিড করোল্লার বাম্পার ফলন হবে বলে আমি আশা বাদী। গোয়ালন্দ উপজেলা কৃষি অফিসার মো. রকিবুল ইসলাম জানান, এ বছরে কেবল মাত্র শুরু ১৫ হেক্টর জমিতে সকল প্রকার সবজি চাষ হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আরো অনেক সবজি চাষ হবে ।