ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর দোকানে হামলা, লুটপাট ও উচ্ছেদের অভিযোগ উঠেছে একটি প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে।

বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীর চৌরাস্তায় কয়েকজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর দোকানে হামলা, লুটপাট ও উচ্ছেদের অভিযোগ উঠেছে একটি প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে মামুন ও বশিরের নেতৃত্বে ৫ থেকে ৬ জন মিলে এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর দোকানে হামলা, লুটপাট করে দোকান ভাংচুর করে উচ্ছেদের চেষ্ঠা চালায় অভিযোগ পাওয়া গেছে।

১৫ থেকে ২০ বছর ধরে আমতলীর চৌরাস্তায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সরকারি যায়গায় ছোট ঘর তুলে ব্যবসা করে আসছেন শহীদ কবিরাজ , সাদেক মুন্সী ও শাহ-আলম । এই তিন ব্যবসায়ীর দোকানের পিছনে প্রভাবশালী বিত্তবান মো.মামুন মিয়া মার্কেট গড়ে তুলেন . মামুন মিয়ার মার্কেটের পূর্ব পাশে সামনে অংশে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দোকান ঘর থাকায় মার্কেটের সৌন্দর্য নষ্ট হয় বিধায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মার্কেট মালিক মো. মামুন মিয়া ও তার ভাই মো. বশির মিয়াসহ ৫/৬ জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সাদেক মুন্সী, শহিদ কবিরাজ, ও শাহ আলমের ঘরের একাংশ ভেঙ্গে ফেলে ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদের চেষ্টা করে তখন ব্যবসায়ীও স্থানীয় জনসাধারনের তোপের মুখে পড়েন মার্কেট মালিক মামুন মিয়া ও তার ভাই মো. বশির মিয়া ।

এ অবস্থায় আমতলী থানা পুলিশ শান্তি শৃংখলা রক্ষা করার জন্য ভাংচুর বন্ধসহ সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেন। মার্কেট মালিক মো. মামুন মিয়া বলেন সে বিদেশ যাওয়ার পূর্বে ঐ জায়গা তার দখলে ছিল বলে দাবী করেন। মারধোরের অভিযোগ ও অস্বিকার করেন। স্থানীয়রা জানান, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী শহীদ, সাদেক ও শাহ-আলম অনেক বছর ধরে তারা এখানে ছোট ঘর তুলে ক্ষুদ্র ব্যবসা করে আসছেন । কিন্তু বৃহস্পতিবার রাতে তাদের দোকানে যে ভাবে হামলা করা হয়েছে তা অমানববিক। স্থানীয়রা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানিয়েছেন। আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহ আলম বলেন, উভয় পক্ষ অভিযোগ দিয়েছেন, তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা
নেয়া হবে।