কৃষক লীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বাষিকী স্ব স্ব গৃহে থেকে পালন করার আহ্বান।

মোঃ ইব্রাহিম হোসেনষ্টাফ রিপোর্টারঃ দেশের কৃষির উন্নয়ন ও কৃষকের স্বার্থ রক্ষার জন্য স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ কৃষক লীগ প্রতিষ্ঠা করেন।প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে কৃষকদের সংগঠিত করা, তাদের দাবি আদায় ও দেশের সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা পালন করে আসছে বাংলাদেশ কৃষক লীগ।

বাংলাদেশ কৃষক লীগের সংগ্রামী সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি এক বিবৃতিতে সারা বাংলাদেশের কৃষক লীগের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে আগামী ১৯ এপ্রিল ২০২০ রোজ রবিবার বাংলাদেশ কৃষক লীগের ৪৮ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর পরিবর্তিত কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন যা নিম্নরূপঃ-

নেতৃদ্বয় বলেন, সম্প্রতি সারাবিশ্ব করোনা ভাইরাস-কোভিড-১৯ এর ভয়াল গ্রাসে নিমজ্জিত  সংগত কারণে বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাংগঠনিক নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষকরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠনের যেকোনো রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক কতৃক নির্দেশিত কর্ম পরিকল্পনার পরিবর্তিত কর্মসূচির তথ্য-উপাত্ত নিম্নে তুলে ধরা হলো। (১) ১৯ এপ্রিল ২০২০ রোজ রবিবার সকাল ১০ ঘটিকার সময় বাংলাদেশ কৃষক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রতিষ্ঠাকালীন সকল নেতৃবৃন্দের প্রতি হৃদয়ের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানিয়ে স্ব স্ব গৃহে থেকে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন।

(২)১৯ এপ্রিল ২০২০ রোজ রবিবার বিকাল ৫ ঘটিকার সময় বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাংগঠনিক নেত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সভাপতি ও সফল প্রধানমন্ত্রী কৃষকরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা এবং বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি জনতা সহ সমগ্র মানব জাতিকে ”করোনো ভাইরাস-কোভিড-১৯” এর ভয়াল থাবা থেকে মুক্তি প্রদানের জন্য নিজ নিজ ধর্ম অনুযায়ী স্ব স্ব গৃহে থেকে বিশেষ দোয়া প্রার্থনা করা।

(৩)”করোনো ভাইরাস-কোভিড-১৯” এর পরিস্থিতির সার্বিক উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষকরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক ওয়ার্ড ত্রাণ কমিটির সাথে সম্পৃক্ত হওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মানবতার সেবায় এগিয়ে আসা ও বোরো মৌসুমে ধান কাটা সহ সকল কৃষি কর্মকান্ডে কৃষকের সার্বিক সহযোগিতা করা।