কুষ্টিয়া সীমান্তে গুলি করে ধরে নিয়ে যাওয়া সেই বাংলাদেশী কৃষক ভারতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।


শাহীন আলম লিটন, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিএএফের গুলিতে আহত বাংলাদেশি কৃষক সোলাইমাণ মোল্লা ভারতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিজিবির ৪৭ ব্যাটালিয়ন কুষ্টিয়ার অধিনায়ক লে. কর্নেল রফিকুল আলম। মৃত সোলইমান মোল্লা কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার মরারপাড়া গ্রামের শাহাদত মোল্লার ছেলে। তিনি কৃষি কাজ করতেন বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। মঙ্গলবার ক্ষেত থেকে সরিষা কাটার জন্য তিনি সীমান্ত এলাকায় গিয়েছিলেন বলে জানান এলাকাবাসী।

 বিজিবির ৪৭ ব্যাটালিয়ন কুষ্টিয়ার অধিনায়ক লে. কর্নেল রফিকুল আলম জানান, শুক্রবার দুপুরে ভারতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোলাইমান মোল্লা মারা যান। বিএসএফ তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তার লাশ দেশে নিয়ে আসার জন্য বিএসএফের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও জানান বিজিবির এই কর্মকর্তা। এর আগে ৪ ফেব্রুয়ারি ছলিমের চর সীমান্ত এলাকায় ১৫৭/২(এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন বাংলাদেশি ভূখণ্ডে কৃষক গাজী, রুবেল ও সাহাবুল নিজ জমিতে সরিষা কর্তন করছিল।

এ সময় ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলার জলঙ্গী থানার মুরাদপুর ক্যাম্পের টহলরত বিএসএফ সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এতে গাজী পায়ে গুলিবিদ্ধ হলে অপর কৃষকরা পালিয়ে প্রাণে রক্ষা পান। পরে গুলিবিদ্ধ কৃষক গাজীকে ধরে নিয়ে যায় বিএসএফ। পরে তাকে ভারতের একটি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।