কাঠের গুঁড়া, ধানের তুষ ও কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি হচ্ছে গুঁড়া মসলা।


কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া শহরের বড় বাজার শাহজালাল মসলা মিলস্ এ কাঠের গুঁড়া, ধানের তুষ ও কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি হচ্ছিল গুঁড়া মসলা। এমন অভিযোগের সত্যতা পেলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার। আজ বুধবার সকালে কুষ্টিয়া শহরের বড় বাজার ঘোড়ার ঘাট রোডের শাহাজালাল মসলা মিলস্ এ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালায়।

সেখানে গিয়ে কাঠের গুঁড়া, ধানের তুষ ও কেমিক্যাল দিয়ে গুঁড়া মসলা তৈরির সত্যতা পায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। সঙ্গে সঙ্গে সেখানে আদালত বসিয়ে মিলের মালিক কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নের মৃত মোতাহার হোসেনের ছেলে মোশারফ হোসেন(৬৯) কে ১লক্ষ টাকা জরিমানা ও তার ছেলে রাশেদ (২৫)কে ১ বছরের কারাদণ্ড এবং প্রতিষ্ঠান সিলগালা করে আদালতের হাকিম সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুবায়ের হোসেন চৌধুরী।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুবায়ের হোসেন চৌধুরী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি যে শাহজালাল মসলা মিলস্ এ ভেজাল মসলা তৈরি করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ কে সাথে নিয়ে অভিযান চালায়। মিলে কাঠের গুঁড়া ও ধানের তুষ মিশিয়ে গুঁড়া মসলা তৈরির সত্যতা মেলে। পরে মিলের মালিক মোশারফ হোসেন ও তার ছেলে রাশেদ তাদের অপরাধ স্বীকার করে।

মসলায় ভেজাল মেশানোর অপরাধে মোশারফ হোসেন কে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা ও তার ছেলে রাশেদ কে ১ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। উভয়কে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন এ রায় দেওয়া হয়। এদিকে এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন ধরে তারা ভেজাল মেশানো মশলার ব্যবসা করছিল। সাধারণ মানুষের মনে প্রশ্ন জেগেছে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ভেজাল মেশানো মশলার মিল কিভাবে বিএসটিআই সনদ পায়?