করোনা যুদ্ধে ভালুকা উপজেলার মানুষের মাঝে জনসচেতনা বৃদ্ধির জন্য দূর্বার গতিতে, ওসি মাইন উদ্দিন।

শরীফ হোসেন ভালুকা প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ভালুকায় করোনাযুদ্ধে সংক্রমণ রোধে কর্মস্থল ভালুকা উপজেলার মানুষের মাঝে জনসচেতনা বৃদ্ধির জন্য দূর্বার গতিতে দিনরাত ছুটে চলছেন ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মাইন উদ্দিন।

ইতিামধ্যে করোনা প্রতিরোধ তৎপরতায় প্রশংসিত হয়ে উঠছেন এলাকার মানুষের কাছে। প্রতিনিয়ত কর্মতৎপরতার মধ্যে সরকারী নির্দেশনার আলোকে এলাকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে করোনা বিষয়ক সচেতনতা মূলক মতবিনিময় সভা অব্যাহত রেখেছেন।

এছারা এলাকা ভিত্তিক ব্যাক্তি উদ্যোগে করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সহ তাদের সাথে করোনা সচেতনতা ও সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখতে দিক নির্দেশনা প্রদান করছেন।

ভালুকায় খেঁটে খাওয়া মানুষের দ্বারে দ্বারে হাজির হয়ে খোঁজ খবর নেওয়ার পাশাপাশি অসহায়ত্ব পরিবারের মাঝে রাতের নিভূর্তে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন। ভালুকায় একমাত্র করোনা রোগীর পরিবারের খোঁজ নিয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার বাজার করে তাদের বাড়ীতে নিজে গিয়ে দিয়ে আসা সহ অসহায় এক রিক্সা চালকের পরিবারকে ভাড়া পরিশোধ না করায় বাড়ী থেকে বের করে দেওয়ার পর নিজ পকেট থেকে ভাড়া পরিশোধ পূর্বক সকল কর্মকান্ডে সর্ব মহলে প্রশংশিত হচ্ছেন ভালুকার ওসি।

পাশাপাশি করোনাযুদ্ধের মধ্যেও এলাকার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখতে দিনরাত নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। অপরদিকে ভালুকায় নিজ উদ্যোগে বিভিন্ন প্যাকেজে যারা ত্রাণ বিতরণ করছেন তাদেরকে উৎসাহিত ও অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে ভালুকা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আক্কাছ আলী জানান,তিনি শুধু একজন পুলিশ কর্মকর্তা নন। তিনি হলেন মানব সমাজের অহংকার । তিনি ভালুকায় যোগদান পরবর্তী কর্মগুনে সম্প্রতি সময়ের মধ্যে এলাকার মানুষের মনিকোঠায় জায়গা করে নিয়েছেন।

ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন বলেন, ‘করোনা যুদ্ধ শুধু আমাদের একার না । এঁটা বৈশ্বিক মহামারি । পুলিশের ভূমিকার পাশাপাশি মানুষের ভূমিকাও অনেক। ভালুকা বাসীকে বলবো আপনারা যত সম্ভব ঘরে থাকুন। সরকারী সকল আইন মানুন। আমরা আপনাদের পাশে আছি। অসহায় মানুষের যতটুকু পারছি সহযোগিতা করবো। এটা অব্যাহত থাকবে