উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবার ওপর হামলা

ঘোড়াঘাট উপজেলা (দিনাজপু): বুধবার ২ সেপ্টেম্বর রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা দিনাজপু ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবার ওমর শেখের ওপর হামলা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইউএনও ও তাঁর বাবাকে গুরুতর আহত অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোরে প্রথমে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। তাঁর বাবা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান তোফায়েল হোসেন ভূঁইয়া জানান, ইউএনওর মাথার বাম দিকে বেশি আঘাত পেয়েছে, প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তাঁর শরীরের ডান দিক অবশ হয়ে গেছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ মাহমুদ বলেন, বুধবার রাতের কোনো একটা সময় হামলা হয়েছে। কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে, তা এখনো স্পষ্ট বলা যাচ্ছে না।

দিনাজপুর ৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং এ জঘন্ন ঘটনায় ঘৃনা প্রকাশ করে অপরাধী যারাই হোক  দ্রুত আইনের আওতায় নেওয়া হবে বলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেন প্রদান করেন তিনি। ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বলেন, ইউএনওর বাসাটি সিসি ক্যামেরার আওতাধীন।

ফুটেজ সংগ্রহ করে দোষী ব্যক্তিদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে। রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, আর্মড ফোর্সেস ডিভিশন থেকে হেলিকপ্টার পাঠানো হচ্ছে। ইউএনওর অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে তাঁকে ঢাকায় পাঠানো হবে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আছেন।