আলোর দিশারি ‘অদম্য শেখ হাসিনা’

ছবি : সংগৃহীত

`বৃষ্টির সেদিন সতেরোই মে, কন্যা ফেরে ঘর।
আকাশ নয় বাতাস নয়-কাঁদে পঁচাত্তর।’

সব্যসাচী লেখক ও কবি সৈয়দ শামসুল হক এভাবেই বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে পঙক্তি সাজিয়েছেন।

গণতন্ত্রের মানসকন্যা শেখ হাসিনা সম্পর্কে লিখেছেন অনেকেই। কেউবা কবিতায়, কেউবা গল্পে। তাঁকে নিয়ে রয়েছে অসংখ্য প্রবন্ধ। কিন্তু সবকটি এক মলাটে রয়েছে কমই।

এক মলাটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে সম্প্রতি গ্রন্থিত হয়েছে নতুন বই ‘অদম্য শেখ হাসিনা’। দৈনিক ঢাকা টাইমস, ঢাকা টাইমস টোয়েন্টি ফোর ডটকম ও সাপ্তাহিক এই সময় সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন বইটি সম্পাদনা করেছেন।

এই সময় পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত বইয়ের শুরুটা হয়েছে সৈয়দ শামসুল হকের কবিতা ‘কন্যা ফেরে ঘর’ শিরোনামের  কবিতা দিয়ে।  এর পরপরই রয়েছে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজীর কবিতা ‘ভেতরের চোখ’। শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে রচিত কবিতাটিতে কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী লিখেছেন,
‘তাঁর চোখে বাংলাদেশ।
যে চোখ মলিন হলে অসমাপ্ত দিন
যে চোখ কাতর মানে ফোটে না তো ফুল
সেই চোখে অশ্রু নিয়ে শোকার্ত স্বদেশ’

অদম্য শেখ হাসিনা বইটির শুরুটা কবিতা দিয়ে হলেও এতে রয়েছে শেখ হাসিনাকে নিয়ে লেখা নানা কথা ও অসংখ্য ছবি।  এর মধ্যে আছে যেমন স্মৃতিচারণমূলক লেখা, তেমনি শেখ হাসিনার স্তুতি, কর্মোদ্যম, গণতন্ত্র, উন্নয়ন, মানবিকতা, অদম্য সাহস আর দেশমাতৃকার উন্নয়নে তাঁর ভূমিকার কথা।

৩৪৩ পৃষ্ঠার এই বইয়ে রয়েছে ‘শেখ হাসিনা আমাদের আলোর দিশারি’ শিরোনামে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের ভাষণ থেকে নেওয়া একটি সংকলিত লেখা। যেটি পড়লে পাঠকরা শেখ হাসিনা সম্পর্কে সম্যক ধারণা পাবেন।

রাষ্ট্রপতির লেখায় শেখ হাসিনা সম্পর্কে এভাবে বলা হয়েছে- ‘উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সার্থক উত্তরসূরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের যাত্রাপথে আলোর দিশারি। অনেক বাধা ও ষড়যন্ত্র পেরিয়ে তাঁর বলিষ্ঠ ও প্রত্যয়ী নেতৃত্বে জনকল্যাণমুখী আধুনিক বাংলাদেশ বর্তমান বিশ্বের উন্নয়ন-বিস্ময়।’

অদম্য শেখ হাসিনা বইয়ের মলাট খুললে পাওয়া যাবে তাঁকে নিয়ে লেখা ৬২ জন কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, প্রাবন্ধিক, রাজনীতিকসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের সৃজনশীলদের ভাবনা। এসব লেখা পড়ে একজন পাঠক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে অনেকটাই জানতে পারবেন। জানতে পারবেন আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে তাঁর অবদানের কথা। এছাড়াও এই বইয়ের পাতায় পাতায় লিপিবদ্ধ রয়েছে শেখ হাসিনার রাজনৈতিক জীবন ও সংগ্রামের কথা, যা বোদ্ধা পাঠককে নতুন করে ভাবাবে।

বইটিতে প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, প্রাবন্ধিক আবদুল গাফফার চৌধুরী, সৈয়দ শামসুল হকের পত্নী আনোয়ারা সৈয়দ হক, প্রাবন্ধিক আবেদ খান, কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, ইতিহাসবিদ ও সাহিত্যিক মুনতাসীর মামুন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদসহ সুধীজনের লেখা রয়েছে।

আছে আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতা তোফায়েল আহমেদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাহাবুদ্দিন চুপ্পুসহ আরও অনেক খ্যাতিমান রাজনীতিকদের লেখা।

এছাড়াও বইটিতে শেখ হাসিনার দেশ পরিচালনার বিভিন্ন বিষয় ও কর্মপদ্ধতি নিয়ে লিখেছেন সাংবাদিক, শিক্ষক, অর্থনীতিবিদ, শিল্পী, আইনজীবীসহ নানা পেশার মানুষ।

অদম্য শেখ হাসিনা বইয়ে আরিফুর রহমান দোলনের ‘অদম্য শেখ হাসিনা’ ও ‘বিকল্পহীন শেখ হাসিনা’ শিরোনামে দুটি লেখা রয়েছে। এসব লেখায় আরিফুর রহমান দোলন উল্লেখ করেছেন- ‘শেখ হাসিনা মানেই অদম্য সাহস। বিকল্পহীন নেতৃত্ব। অতুলনীয় ব্যক্তিত্বের নাম। দেশের চারবারের প্রধানমন্ত্রী। তাঁর সময়ে দেশের উন্নয়ন অতীতের সব ইতিহাসকে ছাড়িয়ে গেছে বহু আগে। মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বও তাঁর হাতে।’

‘অদম্য শেখ হাসিনা’ গ্রন্থটি সময়ের এক অনন্য দলিল। যেটি পড়ে পাঠকরা মানবিকতাগুণে বিশ্বনেতা খেতাবপ্রাপ্ত শেখ হাসিনা সম্পর্কে নতুন নতুন তথ্য পাবেন।
বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে একুশে আগস্টসহ গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যাঁরা শহীদ হয়েছেন তাঁদেরকে।

অদম্য শেখ হাসিনা বইয়ের প্রচ্ছদ এঁকেছেন ধ্রুব এষ। সেপ্টেম্বর ২০২০ সালে প্রকাশিত বইটির মূল্য ৬০০ টাকা। বাংলাদেশের বিভিন্ন লাইব্রেরি ও এই সময় পাবলিকেশন্সের কার্যালয় থেকে এটি সংগ্রহ করা যাবে। কেউ অনলাইন থেকে কিনতে চাইলে রকমারি ডটকমে পাবেন।