আমি বাঁচতে চাই!

অসহায় লোকটির নাম মো: কিরন- বয়স (৩৫), পিতা, মৃত হোসেন, হাসান নগর ১নং ওয়ার্ড, বোরহানউদ্দিন, ভোলা।

হাসনাইন আহমেদ হাওলাদার, জেলা প্রতিনিধি ভোলা: ‘আমি বাঁচতে চাই! গরিব হিসেবে নয়, আমাকে মানুষ হিসেবে ভালোবাসুন, একটু সাহায্য করুন, একটু হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসুন। আপনাদের সম্পদ কমে যাবে না, তবে আমার মতো অভাগা হয়তো বেঁচে যাবে।’ সাংবাদিক হাসনাইন হাওলাদারের” সাক্ষাৎকালে নিজ বাড়ীর বিছানায় শুয়ে অসহায় কিরনের এই করুণ আর্জিতে ভারি হয়ে উঠেছিল তখনকার পরিবেশ। আশপাশের স্বজনরাও এমন কথা শুনে ঝর ঝর চোখের পানি ছেড়ে কেঁদেছেন।

বেঁচে থাকার এমন আর্তনাত শুধু অসুস্থ কিরনের নয় গোটা পরিবারেরও। তবে আর্থিক দিক দিয়ে অসচ্ছল এই পরিবারের কাছে কান্না আর আর্তনাত জানানো ছাড়া যেন কিছুই করার নেই। তবে আশা ছাড়েননি। পরিবারটি এখনো স্বপ্ন দেখেন সুস্থ্য হয়ে আবারো হাসৌজ্জ্বল ভাবে চলাফেরা করবে তাদের অভিভাবক কিরন। অসহায় লোকটির নাম মো: কিরন- বয়স (৩৫), পিতা, মৃত হোসেন, হাসান নগর ১নং ওয়ার্ড, বোরহানউদ্দিন, ভোলা।

গেলো বছর ২০১৯ ইং সালের সেপ্টেম্বর মাসের ২০ তারিখে শ্রমিক ভিসায় কাজ করার লক্ষ্যে আবুধাবিতে যায় কিরন। ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! যাওয়ার ৬ মাসের মাথায়-ই তাঁর জীবনের সকল স্বপ্নগুলো ভেঙে নেমে আসে ঘোর অন্ধকারময় এক কালো দিন।

কাজ করাকালীন সময় উপর থেকে ঢালাইকৃত একটি লিনটন ভেঙে তাঁর গায়ে পরে। পরে সে মাচার উপর থেকে পরে যায় এবং গুরুতর আহত হয়। কিন্তু কিরন মালিকানাহীন শ্রমিক হওয়ায় তার চিকিৎসা খরচ “সাইট কন্টাকটার” কিছুটা দিলেও বাকী খরচ বহন করতে হয়েছে তাকেই। একদিকে বিদেশে নিজ অর্থে চিকিৎসা করার সামর্থ্য না থাকা অন্যদিকে মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশ্বজুড়ে বিমান চলাচলও বন্ধ। তাই আবুধাবিতে দীর্ঘ ৪ মাস ভুগে অবশেষে গত ৩১শে জুন তারিখে বাংলাদশ এম্ভাসির সাহায্যে দেশে আসার সুযোগ হয় তাঁর।

দেশে আসার পর ঢাকা ইবনে সিনা হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলো কিরন। কিন্তু তাঁর কোমর এবং দু’পায়ের বেশি অংশই পঁচে যাওয়ার কারণে ডাক্তার বলেছে কিরন জীবনে আর কোনোদিন হাটতে পারবে না। যতটুকু সম্ভব শুয়ে থাকবে মাঝে মাঝে একটু বাসার চেষ্টা করবে। সাথে ঔষধ চলবে। তা-ই বর্তমানে বিছানায় শুয়েই অসহায়ত্ব দিন কাটাচ্ছেন কিরন। কোনো ইনকাম সোর্সও নেই তাঁর। কিন্তু সংসার..? স্ত্রী’সহ আছে চার বছরের ছেলে ও দুই বছরের একটি অবুঝ মেয়েও। নিজ চিকিৎসা এবং সাংসারিক খরচ কি আর বুঝে এসব.?।

বর্তমানে অসহায়ত্ব ও মানবেতর জীবনযাপন করছে কিরন। কথায় আছে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা, বিন্দু বিন্দু জল! গড়ে তোলে মহাদেশ সাগর অতল। আপনার আমার ক্ষুদ্র সাহায্য হতে পারে তাঁর অনেক বড় সহোযোগিতা। তাই আমরা যে যেখান থেকে পারি সামর্থ্যনুযায়ী অসহায় কিরনের পাশে দাঁড়াই। আর নাহয় একটি শেয়ার করেও সহযোগিতা করতে পারি। মনে রাখবেন; অসহায় অসচ্ছল মানুষের সেবায় এগিয়ে আসা ইসলামে অন্যতম ইবাদত। কিরনের ফোন নাম্বর- ০১৩১৩৫০৭০৩২