আওয়ামীলীগ বঙ্গবন্ধুর সংগঠন, আওয়ামীলীগ শেখ হাসিনার সংগঠন বললেন, সরওয়ার জাহান বাদশাহ্

উৎসবমূখর পরিবেশে খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত।
উৎসবমূখর পরিবেশে খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

নিউজ ডেক্স: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আজ ০১/১১/২০১৯ ইং বিকেলে  ৩ টায় খলিসাকুন্ডি ডিগ্রি কলেজ মাঠে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সম্মেলনে প্রধান অতিথিঃ ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্বঃ সদর উদ্দিন খাঁন, সভাপতিঃ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কুষ্টিয়া জেলা শাখা, প্রধান বক্তাঃ ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকঃ আজগার আলী, উদ্বোধন করেন দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আফাজ উদ্দিন আহমেদ।

বিশেষ অতিথিঃ হিসেবে উপস্থিত আছেন কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদ্যস্য আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ্। জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতপুর উপজেলা সম্মেলনের সমন্বয়ক প্রকৌশলী ফারুক উজজামান, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আলহাজঃ এ্যাডঃ হাসানুল আসকার হাসু, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আলহাজঃ রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, নির্বাহী সদস্য লিয়াকত আলী. দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতিঃ আলহাজঃ রেজাউল হক চৌধুরী, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ শরীফ উদ্দিন রিমন। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এজাজ আহমেদ মামুন, সভাপতিত্ব করেন, ১৩ নং খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, পরিচালনা করেন মোঃ রুহুল আমিন সাধারণ সম্পাদক খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন শাখা।

কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ বলেন, আওয়ামীলীগ বঙ্গবন্ধুর সংগঠন, আওয়ামীলীগ শেখ হাসিনার সংগঠন। এই সংগঠনের নেতা কর্মীরা সৎ, আদর্শিক এবং দেশপ্রেমিক। দৌলতপুরে বিএনপি নেতা পচা মোল্লা ও বাচ্চু মোল্লার ক্যাডার বাহিনীর হাতে মা-বোনেরা পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীর মাঠের ফসল কেটে নিয়েছে, ঘরে আগুন দিয়েছে।

মিথ্যা মামলায় জেলে পাঠিয়েছে। নিমর্মভাবে গুলি করে, পিটিয়ে হত্যা করেছে। হাজার হাজার নেতা কর্মী বাড়ি ছাড়া, এলাকা ছাড়া করেছিলো। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা কত ভাল যে বিএনপির একজন নেতাকর্মীও হামলা মামলার শিকার হয়নি। কারণ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকেরা আইনে শাসনে বিশ্বাসী। প্রতিশোধের রাজনীতিনে বিশ্বাসী নয়।

আওয়ামীলীগ ২১ বছর পর জনগনের ভোটে ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করেছে। আমরা যদি প্রতিশোধ নিতে চাইতাম অনেক আগেই সারাদেশে আওয়ামীলীগের কর্মীরা একমুঠো করে ধুলো নিক্ষেপ করলে বঙ্গবন্ধুর খুঁনিরা ধুলার পাহাড়ের নীচে চাপা পড়ে মারা যেত। কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ ছিলো আইন হাতে তুলে নেওয়া যাবে না।

বাদশাহ্ এমপি আরও বলেন, আমাদের অভিভাবক আছে। জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি। তিনি আমাদের দেখ-ভাল করেন। দৌলতপুরের মানুষের উন্নয়নের কথা ভাবেন। অনুপ্রবেশকারীরা সংগঠনের মধ্যে ঢুকে আত্মকলহ সৃষ্টি করবে।সম্মেলনের মাধ্যমে ত্যাগী এবং পরীক্ষিতদের মুল্যায়ন করবো।জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতপুর উপজেলা সম্মেলনের সমন্বয়ক প্রকৌশলী ফারুক উজ জামান বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ।

এক সময় মিসকিন রাষ্ট্র, তলাবিহীন ঝুড়ির সাথে তুলনা করেছিলো যারা সেই তারাই আজ বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল ঘোষণা দিচ্ছে। নিজেদের অর্থায়নে হচ্ছে পদ্মা সেতু। জননেত্রী শেখ হাসিনা ভিশন ৪১ এর মধ্যে সীমাবদ্ধ নন। তিনি এই দেশকে এগিয়ে নিতে ১০০ বছরের ডেল্টা প্ল্যান ঘোষণা করেছেন। তিনি আরও বলেন, অনুপ্রবেশকারী আর পরগাছায় ক্ষেত খেয়ে ফেলছে। তাই সম্মেলনের মাধ্যমে এই সকল পরগাছামুক্ত করা হবে আওয়ামীলীগকে। আপনারা তৃনমুল থেকে দলকে আগাছামুক্ত করুন।

কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতি পদে ৫ জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৬টি প্যানেল পড়ায় নেতৃবৃন্দ দলে তাদের ত্যাগ, পারিবারিক রাজনৈতিক অবস্থানসহ সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে নেতা-কর্মীদের সাথে বসে কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানান। উপস্থিত সকলে স্বতস্ফুর্তভাবে এই প্রস্তাব মেনে নেয়।