অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী কে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেছে, ও অন্ত:স্বত্তা হয়েছে বলে অভিযোগ

(কুষ্টিয়া) কুমারখলী প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া কুমারখালী অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী (১৪) কে মুখ চেপে ধরে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেছে, ও অন্ত:স্বত্তা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি কুমারখালী উপজেলার সদকী ইউনিয়নের খোর্দ্দ তারাপুর এলাকায় ঘটেছে। এ খবর সর্বস্তরের মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় তোলপাড় দেখা দেয়। একই এলাকার মৃত গণি শেখের ছেলে উকিল শেখ (৩৫) ঐ স্কুল ছাত্রীকে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করেছে। তাঁর এই কাজের সহায়তা করেছে ওই এলাকার মৃত ইসমাইলের ছেলে মোঃ আলম (৪০)।

ধর্ষিতার পরিবার জানান, গত ২৮ মে২০২০ মেয়েটি প্রাইভেট পড়ার উদ্দ্যেশে বাড়ি থেকে বের হয়ে রাস্তায় গেলে পরিকল্পিতভাবে আলম মুখচেপে ধরে জোরপূর্বক ধর্ষক উকিল শেখের কাছে নিয়ে যায় এবং উকিল তার নিজ ঘরে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ায়, বিষয়টি কাউকে না জানালে ঘটনার দুই মাস পরে বমি, মাথাঘোরা ও পেটের ব্যথা উঠলে স্থানীয় এক ডায়াগোনষ্টিক সেন্টারে আল্ট্রাসনো করা হয় এবং রিপোর্ট দেখে চিকিৎসক বলেন মেয়েটি দুইমাসের অন্তঃস্বত্তা।

বিষয়টি চক্ষু লজ্জার ভয়ে কাউকে না জানিয়ে বাচ্চাটি নষ্ট করা হয়। কিন্তু বর্তমানে আসামী ভিডিও ও ছবি আছে বলে ব্লাকমেইল করতেছে এবং নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। এবিষয়ে থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, এঘটনায় এখনও লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত স্বাপক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।