অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রি করার দায়ে ৮ ব্যবসায়ীকে জড়িমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে ভোলা সদর, লালমোহন ও চরফ্যাসন উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে এ জড়িমানা করা হয়।
মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে ভোলা সদর, লালমোহন ও চরফ্যাসন উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে এ জড়িমানা করা হয়।

ভোলায় বিভিন্ন উপজেলায় অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রি করার দায়ে ৮ ব্যবসায়ীকে জড়িমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে ভোলা সদর, লালমোহন ও চরফ্যাসন উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে এ জড়িমানা করা হয়। অতিরিক্ত মূল্যে লবন বিক্রির দায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০১৯’র ৪০ধারায় ভোলা সদরে মোঃ হাসান নামে এক লবণ ব্যবসায়ীকে ৫হাজার টাকা জড়িমানা করা হয়। এসময় লবণ ভর্তি একটি ট্রাক জব্দ করা হয়।

পরে তা ছেড়ে দেওয়া হয়। লালমোহন উপজেলায় মেমার্স জিহাদ স্টোর, মেসার্স জান্নাত স্টোরকে ৩ হাজার টাকা, মেসার্স রাধিয়া স্টোর এবং মা স্টোরকে ৫হাজার টাকা করে ৪ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোট ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এবং চরফ্যাসন বাজারের ব্যবসায়ী বাবুল (২৭)কে ৫ হাজার, মো. সেলিম (২৯) কে ৩ হাজার ও আলমগীর হোসেন(৪২) কে ৩ হাজার টাকা করে ৩জনকে মোট ১১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভোলায় নির্ধারিত মূল্যের বেশী টাকায় লবন বিক্রি করলে প্রশাসনকে অবহিত করার অনুরোধ জানিয়ে বিভিন্ন উপজেলায় মাইকিং করা হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা যায়,মঙ্গলবার সকাল থেকে হঠাৎ করে জেলার সদর সহ বিভিন্ন উপজেলায় লবণ সংকট গুজবে বাজারগুলোতে লবণ ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করে। মুহূর্তের মধ্যে বাজারে লবন সংকট দেখা দেয়। বিকেল জেলা ও বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন বাজার তদারকীতে মাঠে নামেন।

এসময় অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রি করার দায়ে ভোলা,লালমোহন ও চরফ্যাশনে ৮ ব্যবসায়ীকে জড়িমানা করা হয়। এবিষয়ে ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান গুজব ছড়িয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যেনের বাজার অস্থিতিশীল করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন হবে।

কামরুজ্জামান শাহীন ভোলা